সাগরতলের বিস্ময়কর হ্রদে গেলেই প্রাণী হয় মমি

0
128

সুপ্রভাত ডেস্ক :
মৃত জীবের দেহাবশেষ মাটিতে মিশে মিথেন গ্যাস তৈরি হয়। ক্ষণে ক্ষণে তা সাগরের তলদেশ থেকে নির্গত হয়। মেক্সিকান উপসাগরে মিথেনের সঙ্গে আরেকটি পদার্থও বেরিয়ে আসে।
ব্রাইন বা লবণের ঘন দ্রবণ। জলের চেয়ে পাঁচ গুণ ভারী ব্রাইন, সাগরতলের নিম্নভূমিতে জড়ো হয়। তৈরি হয় সাগরতলের হ্রদ বা ব্রাইন লেক। দৃশ্যটি বর্ণনা করা সত্যিই কঠিন। রূপকথার মতোই অবিশ্বাস্য।
সাগরতলে অত্যন্ত ঘনীভূত লবণাক্ত জলের হ্রদ। যা ১৫ মিটার পর্যন্ত গভীর। কাটথ্রোট ইল হ্রদের পাড়ে আসে খাবারের খোঁজে। এদের কেউ কেউ হ্রদে ডুব দেয়।
ব্রাইন লেকে হাইড্রোজেন সালফাইড ঘনীভূত অবস্থায় থাকে। যা প্রায় সব প্রাণীর জন্য বিষাক্ত। ব্রাইন এদের শরীরকে অনেকটা মমির মতো বানিয়ে ফেলে। ফলে মৃতদেহগুলো যুগের পর যুগ লেকের আশেপাশে ভেসে বেড়ায়।
তবে সব প্রাণী ব্রাইন শকে কাঁতর নয়। লেকের পাড়েই বিশালাকার সব ঝিনুকের বসবাস। ঝিনুকের কলোনিকে কেন্দ্র করে চিংড়ি আর কাঁকড়ার কলোনিও বিস্তার লাভ করেছে।
একটি পরিবেশ কিছু প্রাণীর জন্য মারাত্মক হলেও অন্য প্রাণীর জন্য তা হতে পারে স্বর্গ। আপনার জন্য যা চমকপ্রদ অন্যের জন্য তা হতে পারে প্রাণঘাতী। খবর : ডেইলিবাংলাদেশ’র।