যতক্ষণ মাঠে প্রশাসন লকডাউন ততক্ষণ

108

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান :

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে রাউজান উপজেলা প্রশাসন ও আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে, তারপরও লকডাউন না মেনে চলালচল করছে সিএনজি অটোরিক্সা শপিং মলে গোপনে চলছে কেনা কাটা। হাট বাজার গুলোতে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে ক্রেতা বিক্রেতারা ভিড় করছে । সরকার লকডাউন  ঘোষণা করার পর থেকে চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মহাসড়ক ও চট্টগ্রাম কাপ্তাই মহাসড়কে কোন যাত্রীবাহী  বাস চলাচল করেনি। দেড় হাজার পরিবহন শ্রমিক বেকার জীবন যাপন করছে । লকডাউন  অমান্য করে চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মহাসড়ক, চট্টগ্রাম কাপ্তাই মহাসড়ক, রাউজান নোয়াপাড়া সড়ক, হাফেজ বজলুর রহমান সড়ক, অদুদিয়া সড়ক, শহীদ জাফর সড়ক, দোস্ত মোহাম্মদ চৌধুরী সড়ক, ডাবুয়া রাবার বাগান হিংগলা সড়ক, দক্ষিন হিংগলা কলমপতি সড়ক, সাহেব বিবি সড়ক, উরকিরচর এন্ডারসন সড়ক, মোহাম্মদজমা সড়ক, পাচঁখাইন লাম্বুর হাট সড়ক, খান বাহাদুর আবদুল জব্বার চৌধুরী সড়ক, চিকদাইর সাহেব বাড়ী সড়ক, নদীম পুর সড়ক, ইছাপুর সড়ক, হলদিয়া ভিলেজ রোড, এয়াসিন নগর সড়ক, আইলী খীল ওয়াহেদের খীল সড়ক, চান মিয়া চৌধুরী সড়ক, রশিদর পাড়া সড়ক, পুর্ব গুজরা বড়ঠাকুর পাড়া সড়ক, নেঅযাপাড়া কচুখাইন সড়ক, পুর্ব রাউজান সুলতান আউলিয়া সড়ক, গনির ঘাট সড়ক, কাগতিয়া মাওলানা রুহুল আমিন সড়কে সিএনজি অটোরিক্সা, মোটর সাইকেল চলাচল করছে।

রাউজানের ফকির হাট বাজার, গহিরা চৌমুহনী, জলিল নগর বাস স্টেশন, রমজান আলী হাট, কাগতিয়া বাজার, আমির হাট, মগদাই পিকে সেন হাট, পাহাড়তলী চৌমুহনী বাজার, গৌরিশংকর হাট, কদলপুর আশরফ আলী চৌধুরী হাট, নোয়াপাড়া পথের হাট, ব্রাম্বন হাট, লাম্বুর হাট, গশ্চি নয়া হাট, নোয়াপাড়া চৌধুরী হাট, কচুখাইন মিয়া আলী বাজার, মদুনাঘাট বাজার, উরকিরচর আলা মিয়ার হাট, আধার মানিক অলি মিয়ার হাট, নতুন চৌধুরী হাট, নোয়াজিশপুর নতুন হাট, চিকদাইর হক বাজার, হলদিয়া ফকির টিলা বাজার, জানিপাথর বাজার, উত্তর সর্তা দরগাহ ছড়ি বাজার, কদলপুর ঈশান ভট্টের হাট, নাতোয়ান বাগিচা বাজার গুলোতে লকডাউন অমান্য করে শপিং মলের মধ্যে কাপড়ের দোকান, জুতার দোকান, প্রশাধনী সামগ্রীর দোকানের সামনের দরজা বন্ধ করে দোকানের দরজার কিছু অংশ খোলা রেখে গোপনে মালামাল বিক্রয় করছে।

রাউজান উপজেলা উপজেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা অভিযানে বের হলে দোকানের দরজা বাইর থেকে তালা লাগিয়ে দেয় ব্যবসায়ীরা।

উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা চলে গেলে দোকানের দরজায় বাহিরে  লাগানো  তালা খুলে দিয়ে মালামাল বিক্রয় করছে ব্যবসায়ীরা ।

রাউজানের বিভিন্ন সড়কে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত সময়ে মোটর সাইকেলর চালকসহ ২ জন আরোহী নিয়ে সড়কে চলাচল করছে । সড়কে চলাচলকারী মোটর সাইকেলের মধ্যে অধিকাংশ মোটর সাইকেলের কোন লাইসেন্স , কাগজ পত্র নেই ।

নেই চলাচলকারী মোটর সাইকেলের মধ্যে অনেকগুলোর কোন রেজিস্ট্রেশন নম্বর। মোটর সাইকেল চালকের নেই কোন ড্রাইভিং লাইসেন্স । মোটর সাইকেল চালক ও আরোহীর মুখে নেই মাস্ক,  রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেনায়েদ কবির সোহাগ পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সহায়তায় রাউজান উপজেলা সদর ও চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মহাসড়কের জলিল নগর বাস স্টেশন, গহিরা চৌমুহনী, মুন্সির ঘাটা প্রতিনিয়ত অভিযান চালায় ।

অভিযান চলাকালে সড়ক  থেকে সিএনজি অটোরিক্সা ও মোটর সাইকেল বন্দ্ব হয়ে গেলে ও অভিযান শেষে পুনরায় মোটর সাইকেল ও সি,এন,জি অটোরিক্সা পুনরায় সড়কে চলাচল শুরু করে। লকডাউন ঘোষণা করার পর থেকে রাউজানের দক্ষিন রাউজান পাহাড়তলী চৌমুহনী বাজার ও নোয়াপাড়া পথের হাট এলাকায় চট্টগ্রাম কাপ্তাই সড়কে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সহায়তায় রাউজান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অতিশ দর্শী চাকমা অভিযান চালায় যতক্ষণ অভিযান ততক্ষণ সড়কে যান চলাচল কমে গেলেও অভিযান শেষে পুনারায় সড়কে যানবাহন চলাচল করছে ।

রাউজান-রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন শামীম, রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুন পুলিশ সদস্যদের নিয়ে লকডাউন কার্যকর করতে প্রতিনিয়ত সড়কে দায়িত্ব পালন করছেন । অভিযানের সময়ে সড়কে যানবাহন চলাচল ফাঁকা হয়ে পড়লে ও অভিযান শেষ হলে সড়কে  পুনরায় সড়কে চলাচল করে সিএনজি অটোরিক্সা ও মোটর সাইকেল ।

কড়া  লকডাউন ঘোষণার পর থেকে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করে যানবাহন চলাচল, শপিং মলে কেনাকাটা, সড়ক পরিবহন আইনে ৭ হাজার ৫শত টাকা জরিমানা আদায় করে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেনায়েদ কবির সোহাগ। গতকাল ২০ এপ্রিল সকালে রাউজান ফকির হাট বাজার, গহিরা চৌমুহনী এলাকায় পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সহায়তায় রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ অভিযান চালিয়ে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করে সড়কে মোটর সাইকেল চালানোর অপরাধ ও দোকান খোলা রেখে কেনাকাটা করার অপরাধে ৫ হাজার ৫শ টাকা জরিমানা আদায় করে। অভিযান চলাকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ রাউজান ফকির হাট বাজার, মুন্সির ঘাটা, গহিরা চৌমুহনী এলাকায় পথচারী, পরিবহন শ্রমিক, সাধারন মানুষের মধ্যে মাস্ক ও স্যনিটেজার বিতরন করেন । এসময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন রাউজান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার নিয়াজ মোরশেদ।

রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, করোনা ভাইরাসের ২য় ঢেউ শুরু হওয়ার পর থেকে রাউজানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা অর্ধশতাধিক । রাউজানে লকডাউন কার্যকর করতে প্রতিনিয়ত অভিযান চালানো হচ্ছে । তারপরও লকডাউন অমান্য করে বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে সড়কে চলাচল করছে সিএনজি অটোরিক্সা ও মোটর সাইকেল । করোনা ভাইরাসের ২য় ঢেউ শুরু হওয়ার পর সরকার লকডউন ঘোষনা করার পর থেকে হাজার হাজার পরিবহন শ্রমিক, দিন মজুর, দোকান কর্মচারী কর্মহীন হয়ে পড়েছে । কর্মহীন শ্রমিক ও দিনমজুরের পরিবার পরিজন কষ্টের মধ্যে জীবন যাপন করছেন।

লকডাউন শুরু হওয়ার পর সরকারী ভাবে ৩শত পরিবারকে রাউজান উপজেলা প্রশাসন ত্রান দিয়েছেন । এছাড়া ও  বেসরকারিভাবে রাউজানের সমাজ সেবী সংগঠন আজিজুর রহমান ফাউন্ডেশন, মাইজভান্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ দরিদ্র অসহায় পরিবারের মধ্যে ইফতার সামগ্রী ও খাদ্য বিতরন করেছেন ।