মুম্বাইয়ের পঞ্চম শিরোপা

0
129
Mrs Nita Ambani celebrates with the Mumbai Indians as they are crowned champions during the final of season 13 of the Dream 11 Indian Premier League (IPL) between the Mumbai Indians and the Delhi Capitals held at the Dubai International Cricket Stadium, Dubai in the United Arab Emirates on the 10th November 2020. Photo by: Ron Gaunt / Sportzpics for BCCI

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
‘চ্যাম্পিয়ন অফ দ্য চ্যাম্পিয়ন্স’! আইপিএলের ইতিহাসে রোহিত শর্মার নামের পাশে এই বিশেষণ ব্যাবহার হলে বোধহয় আর্দশ হবে। মরু শহরে দিল্লি ক্যাপিটালসকে হারিয়ে ২০২০ আইপিএল জিতে নিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এই নিয়ে পঞ্চমবার আইপিএলে খেতাব (২০১৩, ২০১৫, ২০১৭, ২০১৯ ও ২০২০) জিতল নীতা আম্বানির দল। পাঁচবারই মুম্বাইকে ট্রফি এনে দেন রোহিত।
ফাইনালে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে রান তাড়া করতে নেমে ব্যাট হাতে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্বে দেন রোহিত। চোটের জন্য কয়েকটি ম্যাচ মাঠের বাইরে থাকার পর দলে ফিরে শেষ দু’টি ম্যাচে রান পাননি। কিন্তু ফাইনালে দুরন্ত হাফ-সেঞ্চুরি করে দলকে একাই জেতালেন রোহিত। ৫১ বলে পাঁচটি চার ও ৪টি ছয় মেরে ৬৮ রান করে আউট হন মুম্বাই ক্যাপ্টেন।
১৫৭ রান তাড়া করতে নেমে ওপেনিং জুটিতে ৫৪ রান ম্যাচ অর্ধেক জিতে নেয় মুম্বাই। এদিন অফ-স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে দিয়ে বোলিং শুরু করে দিল্লি। প্রথম ওভারে অশ্বিন ৮ রান দেন। কিন্তু দ্বিতীয় ওভারে কাগিসো রাবাদাকে ১৮ রান নিয়ে দিল্লির বোলিংয়ের ভিত নড়িয়ে দেন কুইন্টন ডি’কক। প্রথম চার ওভারে ৪৫ রান তোলে মুম্বইয়ের দুই ওপেনার। কিন্তু পঞ্চম ওভারের প্রথম বলে মার্কাস স্টওনিস ডি’কক-কে ডাগ-আউটে ফেরালেও ম্যাচ জিততে অসুবিধা হয়নি মুম্বইয়ের।
রোহিতের দুরন্ত হাফ-সেঞ্চুরির পাশে ডি’ককের ১২ বলে ২০ এবং ইশান কিশানের ১৯ বলে ৩৩ রানের ঝড়ো ইনিংসে হাসতে হাসতে ম্যাচ জিতে নেয় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। শেষ দিকে কাইরন পোলার্ড ও হার্দিক পান্ডিয়ার উইকেট হারালেও ইশানের ব্যাটিং দাপটে ৮ বল বাকি থাকতেই পাঁচ উইকেট ম্যাচ জিতে নেয় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। দিল্লির হয়ে দারুণ বোলিং করেন অক্ষর প্যাটেল। ৪ ওভারে মাত্র ১৬ রান দেন দিল্লির এই বাঁ-হাতি স্পিনার। আর চার ওভারে মাত্র ২৮ রান দেন বোল্ট।
দিল্লি ক্যাপিটালসকে এদিন ম্যাচে ফিরতে দেয়নি রোহিত অ্যান্ড কোং। প্রথম ব্যাটিং করে মুম্বাইয়ের বিরুদ্ধে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রান তুলেছিল দিল্লি। শ্রেয়স আইয়ার ও ঋষভ পন্তের হাফ-সেঞ্চুরি করে দলকে লড়াইয়ের জায়গা নিয়ে গেলেও রোহিতের জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। মুম্বাইয়ের দারুণ বোলিং করেন ট্রেন্ট বোল্ট।
আইপিএলে রোহিতদের শুরুটা চ্যাম্পিয়নের মতো না-হলেও শেষটা হল চ্যাম্পিয়নের মতো। গতবারের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ত্রয়োদশ আইপিএলে মাঠে নেমেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। কিন্তু উদ্বোধনী ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে হেরে মরু শহরে আইপিএল অভিযান শুরু করেছিল রোহিত অ্যান্ড কোং। কিন্তু ফাইনালে দিল্লিকে হারিয়ে ‘চ্যাম্পিয়ন অফ দ্য চ্যাম্পিয়ন্স’ হয়ে উঠল রোহিতের মুম্বাই।