রাউজানে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

0
127

কোটি টাকার জমি উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান :

রাউজান উপজেলা হলদিয়া ইউনিয়নের অমির হাটের পুর্ব পাশে হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের জমি অবৈধভাবে দখল করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে বসতবাড়ি নির্মাণ করেন ফরিদ মিয়া, রফিক মিয়া, ভাগ্যধন ভট্টাচার্য্য। গত দু মাস পুর্বে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার নিক্সন চৌধুরী উপজেলা ভুমি অফিসের সার্ভেয়ার দিয়ে পরিমাপ করে হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের জমির সীমানা চিহ্নিত করেন। কেন্দ্রের জমি ছেড়ে দিয়ে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ । দুই মাসের মধ্যে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে না নেয়ায় গত ৮ নভেম্বর দপুর ২টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি আবদুল্ল্যাহ আল মাহমুদ ভুইয়ার নেতৃত্বে রাউজান থানা পুলিশের সহায়তায় হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে কোটি টাকা মুল্যের জমি উদ্ধার করেন। আরো উপস্থিত ছিলেন, রাউজান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার নিয়াজ মোরেেশদ, হলদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, মেম্বার শামশুল আলম, জসিম উদ্দিন। অবৈধ স্থাপনা নির্মাণকারী ফরিদ মিয়ার স্ত্রী রেকেয়া বেগম বলেন, ৪০ শতক জমি হলদিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম কাদের মিয়া থেকে আমার স্বামী ফরিদ মিয়া ও দেবর রফিক মিয়া ক্রয় করে বাড়ি নির্মান করেন। ঐ জমির মালিক হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্র তা আমরা জানিনা । হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের জমি ও সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম কাদের মিয়া দেয় বলে জানান হলদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম । উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ওপরিবার কল্যান কেন্দ্রের জমি অবৈধভাবে দখল করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে ঘরবাড়ি নির্মান করে। ঐ জমি পরিমাপ করে দুই মাস পুর্বে হলদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেয়া হলেও স্থাপনা সরিয়ে না নেয়ায় অভিযান চালিয়ে কেন্দ্রের কোটি টাকা মুল্যের জমি উদ্বার করি।