অপকর্মে জড়িতদের স্থান আওয়ামী লীগে নেই

0
270

নিজস্ব প্রতিনিধি, চকরিয়া »

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চকরিয়া উপজেলা শাখার আয়োজনে রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার বিকালে চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকিত হোসেন সাজিব। জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবানে প্রায় ৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা জাতির পিতার জীবনীর উপর রচনা প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। পরে প্রাথমিকস্তরে তিনজন, মাধ্যমিকস্তরে পাঁচজন ও উচ্চ মাধ্যমিকস্তরে পাঁচজনকে বিজয়ী ঘোষনা করেন ছাত্রলীগের প্রতিযোগিতা বাছাই কমিটি। অনুষ্ঠানে বিজয়ী ১৩জন শিক্ষার্থীকে বিশেষ পুরস্কার এবং প্রতিযোগিতায় অংশনেয়া আরও ৫০জন শিক্ষার্থীকে স্বান্তনা পুরস্কার তুলে দেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।রাজিবুল মোস্তাফার সঞ্চালনায় পুরস্কার বিতরণীর আগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী  লীগের সহসভাপতি ও সাবেক চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মকছুদুল হক ছুট্টু, সাহারবিলের চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, চকরিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, আলহাজ কাউছার উদ্দিন কছির, আজিজুল ইসলাম সোহেল। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জামশেদ উদ্দিন, এহসান হাবিব, মোহাম্মদ সুজন, করিম উল্লাহ আজমিহি তাজিদ, আব্দুলাহ আল মারুফ, জাহেদুল ইসলাম,আব্দুল আজিজ, মুবিনুল ইসলাম ওয়াহিদ, মো.মুবিন, হামিদ হোসেন, মেহেদী হাসান নাহিদ। উপস্থিত ছিলেন আবদুল্লাহ আল নোমান,সাহাদাত হোসেন, জিয়াবুল হাসান জিয়া, আবদুল্লাহ আল মামুন, কাইছারুল ইসলাম, মনজুর আলম,  জসিম উদ্দিন বাবু, আহসান উল্লাহ হাবিব, জাহেদুল ইসলাম ও মোহাম্মদ ইসমাইল, আলাউদ্দিন, মাহাবুবুল আলম মাহাবুব,মোশাররফ হোসেন,রাশেদুল ইসলাম,মো. ছোটনসহ চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সকল নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করতে হবে। সরকার প্রধানের নির্দেশে দেশের ক্রান্তিলগ্নে সব দুর্যোগ দুর্দিনে জনগনের কল্যাণে কাজ করতে হবে। মনে রাখতে হবে দলের নাম ভাঙিয়ে বা প্রভাব খাটিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথা আওয়ামী লীগের সুনাম ভুলন্ডিত হয় এইধরণের কোন অপকর্মের সাথে নেতাকর্মীরা জড়িত হতে পারবেনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছেন, যারা দলের নাম ভাঙিয়ে প্রভাব খাটিয়ে অপকর্মে  জড়াবে তাদের দায়ভার আওয়ামী  লীগ নেবেনা। তাদেরকে চিহিৃত করতে হবে। তাদের প্রয়োজন আওয়ামী লীগের নেই।