নাগরিক শোকসভায় বক্তারা : গবেষণামূলক কর্মকা-ে ড. আনিসুজ্জামানের অবদান অপরিসীম

0
157

‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে ইতিহাস ও বাংলা ভাষা বিকৃতকারীদের বিরুদ্ধে তার কলম সর্বদা সাহসী ও সোচ্চার ছিলেন।’
প্রফেসর অব ইমিরেটাস, ভাষা বিজ্ঞানী, লেখক, গবেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষক জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানের নাগরিক শোকসভায় বক্তারা এ কথা বলেন।
বক্তারা আরো বলেন, ‘দুই বাংলায় শিল্প-সাহিত্য ও গবেষণামূলক কর্মকা-ে ড. আনিসুজ্জামানের অবদান অপরিসীম। দেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও ক্রান্তিলগ্নে ড. আনিসুজ্জামানের সাহসী ভূমিকার কথা বাঙালি জাতি শ্রদ্ধাভরে স্মরণ রাখবে উল্লেখ করে বক্তারা বলেন যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে ড. আনিসুজ্জামান সব সময় প্রগতিশীল ধারায় রাজনীতি করে গেছেন।
২৮ অক্টোবর বিকাল ৫টায় নগরীর কদম মোবারক তারাবানু ভবনস্থ চট্টগ্রাম একাডেমি মিলনায়তনে গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদ’র সভাপতিত্বে এবং সাংবাদিক রিমন মুহুরী ও সমীরন পালের যৌথ সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক প্রফেসর ড. জিনবোধি ভিক্ষু। প্রধান বক্তা ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মো. খোরশেদ আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ১৪ দলীয় জোট নেতা স্বপন সেন, চট্টগ্রাম আইন কলেজ সাবেক জিএস সুমন দেবনাথ, চট্টগ্রাম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামুর রশিদ চৌধুরী, মা ও শিশু হাসপাতালের আজীবন সদস্য ওসমান গণি, বীর মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক শিব প্রসাদ, অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম খান, কবিয়াল কল্পতরু ভট্টাচার্য, লেখক ও সাংবাদিক সৈয়দ দিদার আশরাফী, প্রশান্ত বড়–য়া, ছাত্রনেতা রাশেদুল হক খোকন। বক্তব্য রাখেন প্রণবরাজ বড়–য়া, পারভীন চৌধুরী, হাজেরাতুন্নেসা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান মিলন, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাহাদুর আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা ছবির আহমেদ, চৌধুরী জসিমুল হক, আওঙ্গজেব খান স¤্রাট, মো. তিতাস। উপস্থিত ছিলেন শিল্পী অচিন্ত্য কুমার দাশ, শিল্পী নারায়ন দাশ, কবি সজল দাশ, শিল্পী হানিফুল ইসলাম চৌধুরী, শিল্পী নুপুর আক্তার, শিল্পী শিউলী আক্তার, শারমিন আকতার, সাথী কামাল, আবৃত্তিশিল্পী সোমা মুৎসুদ্দী, রতন ঘোষ, একে এম মুজিবুর রহমান, হাসান মুরাদ, ওসমান গণি, আরিফুল ইসলাম, সৌরভ বিশ্বাস, রফিকুল ইসলাম, মো. ইমরান, মো. সাজ্জাদ প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি