জেলা প্রশাসনের অভিযান : আতঙ্কে খুলছে না পেঁয়াজের আড়ত

0
137

সুপ্রভাত ডেস্ক »
পেঁয়াজের দামে লাগাম টানতে খাতুনগঞ্জে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত বেশ কিছু আড়তকে জরিমানা করায় সোমবার আড়তদারেরা দোকান বন্ধ রেখেছে।
জরিমানা আতঙ্কে সকাল থেকে পেঁয়াজ, রসুন, আদার আড়তগুলো খোলেননি ব্যবসায়ীরা।
এতে খুচরা বিক্রেতারা পেঁয়াজ, রসুন, আদা কিনতে না পারায় বাজারে অস্থিরতার আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। সকালে খাতুনগঞ্জে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভও করেন আড়তদাররা।
খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজের বড় পাইকারি বাজার হামিদ উল্লাহ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইদ্রিস বাংলানিউজকে জানান, জেলা প্রশাসনের গণহারে জরিমানা আতঙ্কে আড়তদারেরা দোকান বন্ধ রেখেছেন। আমি জেলা প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি স্বাভাবিক করার উদ্যোগ নিতে চাই।
তিনি জানান, খাতুনগঞ্জে ভারতের পেঁয়াজের আমদানিকারক নেই বললেই চলে। স্থলবন্দর থেকে বেপারিরা পেঁয়াজ পাঠিয়ে দাম বেঁধে দেন। সেই দামে কমিশনের ওপর আড়তদার বিক্রি করেন। তাই বাজার মনিটরিং করতে হবে স্থলবন্দরগুলোতে।
এর আগে পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে খাতুনগঞ্জে রোববার অভিযান চালিয়ে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত ১০ আড়তদারকে জরিমানা করে।
ভ্রাম্যমাণ আদালত
পরিচালনাকালে বিভিন্ন অনিয়ম ও ক্রয় ইনভয়েস না রেখে নিজেদের মতো মূল্য বৃদ্ধি করায় মেসার্স বরকত ভা-ারকে ১০ হাজার টাকা, মেসার্স গোপাল বাণিজ্য ভা-ারকে ১০ হাজার টাকা, মেসার্স হাজী মহিউদ্দিন সওদাগরকে ১০ হাজার টাকা, মেসার্স সেকান্দার অ্যান্ড সন্সকে ১০ হাজার টাকা, মোহাম্মাদীয়া বাণিজ্যালয়কে ১০ হাজার টাকা, মোহাম্মদ জালাল উদ্দীনকে ১০ হাজার টাকা, গ্রামীণ বাণিজ্যালয়কে ৫ হাজার টাকা, আরাফাত ট্রেডার্সকে ৫ হাজার টাকা, মেসার্স বাগদারিক করপোরেশনকে ৫ হাজার টাকা ও শাহাদাত ট্রেডার্সকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।