স্যার ডন ব্র্যাডম্যান : ইতিহাসের সর্বশ্রেষ্ঠ ব্যাটসম্যান

0
266

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
ক্রিকেট খেলার ইতিহাসে সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যানদের নাম আসলে একদম প্রথমে থাকবে স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের নাম। ক্যারিয়ারের শেষ ইনিংসে মাত্র চার রান করলেই ১০০ গড়ে বিদায় নিতে পারতেন তিনি। তবে কোনো রান না করেই সাজঘরে ফেরেন ব্র্যাডম্যান। আজ ইতিহাসের সর্বশ্রেষ্ঠ এই ব্যাটসম্যানের জন্মদিন।
স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের পুরো নাম ডোনাল্ড জর্জ ব্র্যাডম্যান। ১৯০৮ সালের আজকের দিনে অস্ট্রেলিয়ায় নিউ সাউথ ওয়েলসের কুটামুন্ড্রা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। মাত্র ২০ বছর বয়সে ১৯২৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে ডনের অভিষেক হয়। ২২ গজে খেলে যান আরো দুই দশক। ১৯৪৮ সালে ক্রিকেট থেকে অবসর নেয়ার আগে মাঝের কিছু বছর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণে খেলা থেকে দূরে ছিলেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।
ঘরোয়া ক্রিকেটে নিজের প্রথম ইনিংসেই শতক করা ব্র্যাডম্যানের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের যাত্রার শুরুটা সুখকর ছিল না। ব্যাগি গ্রিন পরে খেলা প্রথম ম্যাচের দুই ইনিংসে যথাক্রমে ১৮ ও ১ রান করেছিলেন তিনি। ফলে পরের ম্যাচেই দল থেকে বাদ। এক ম্যাচ পর সুযোগ পেয়ে আর ভুল করেননি। এবার দুই ইনিংসে করেন যথাক্রমে ৭৯ ও ১১২ রান। এরপর তাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।
৫২টি আন্তর্জাতিক টেস্টে ৬৯৯৬ রান করা ব্র্যাডম্যান ক্যারিয়ার শেষ করেছেন ৯৯.৯৪ গড় নিয়ে। সবমিলিয়ে তিনি ২৯ সেঞ্চুরি ও ১২টি ডাবল সেঞ্চুরিতে করেছেন। ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে সবচেয়ে বেশি ৯৭৪ রান করার দুর্দান্ত রেকর্ডটি তার দখলে।
খেলোয়াড়ি জীবন থেকে অবসর নেয়ার পর পরবর্তী তিন দশকে নানাভাবে অজি ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ব্র্যাডম্যান। এ সময় প্রশাসক, দল নির্বাচক ও লেখক হিসেবে কাজ করেন তিনি। ১৯৪৯ সালে সম্মানসুচক ‘নাইটহুড’ সম্মানে ভূষিত হন ব্র্যাডম্যান। ১৯৯৭ সালে অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রী জন হাওয়ার্ড তাকে ‘সর্বশ্রেষ্ঠ জীবিত অস্ট্রেলীয়’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন। ২০০৯ সালে আইসিসি ক্রিকেট হল অব ফেমে ব্র্যাডম্যানকে মরণোত্তর সম্মাননা দিয়ে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।
ক্রিকেটে কখনো নার্ভাস নাইন্টিজের শিকার হননি ব্র্যাডম্যান। তবে জীবনের ইনিংসে নব্বইয়ের ঘরেই ফিরে গেছেন তিনি। ২০০১ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি ৯২ বছর বয়সে মারা যান এই অজি কিংবদন্তি।
টেস্টে ব্র্যাডম্যানের সর্বোচ্চ গড়ের রেকর্ড স্পর্শ করা দূরের কথা, কেউ কখনো ধারে কাছেও যেতে পারেননি। তার এই রেকর্ডকে কখনো ভাঙা যাবে না এমন কীর্তি হিসেবেই গণ্য করা হয়। নিজের এই কীর্তির মতো ব্র্যাডম্যানও সবসময় সবার ওপরেই থাকবেন। ক্রিকেট ইতিহাসে তিনি অমর হয়ে থাকবেন সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে। খবর : ডেইলিবাংলাদেশ’র।