‘স্টার্টআপ চট্টগ্রাম ইনকিউবেশন’ বিষয়ক অনুষ্ঠান : ‘চট্টগ্রামের উন্নয়নে যুবসমাজকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে’

0
178

টেকনোলজি বিষয়ক উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবকদের উদ্দেশ্যে প্রথমবারের মত বন্দর নগরীতে ‘ফর অ্যাসপায়ারিং টেকনোপ্রিনিউরস্ অ্যান্ড ইনোভেটরস্” শ্লোগান নিয়ে ‘স্টার্টআপ চট্টগ্রাম ইনকিউবেশন’ বিষয়ক একটি অনুষ্ঠান রেডিসন ব্লু চট্টগ্রাম বে ভিউতে অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ মজিবুল হক। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইডিইএ প্রকল্পের সিনিয়র পরামর্শক আর এইচ এম আলাওল কবির, চট্টগ্রাম চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ও চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালকবৃন্দ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ‘চট্টগ্রামের উন্নয়নের জন্য যুবসমাজকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।’ এছাড়া তিনি নলেজ বেইজড ইকোনমি গড়ে তুলতে তরুণদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আইডিইএ প্রকল্পের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ মজিবুল হক স্টার্টআপ চট্টগ্রামের এ ধরণের উদ্যোগকে স্বাগত জানান। তিনি সকল স্টার্টআপদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধি করে ব্যবসায়ের উন্নয়নের মাধ্যমে একজন সফল উদ্যোক্তায় পরিণত হবার জন্য অনুপ্রাণিত করেন।
‘স্টার্টআপ চট্টগ্রাম ইনকিউবেশন’ ৫০ দিনের একটি শিক্ষামূলক কর্মশালা যেখানে বাছাইকৃত স্টার্টআপদের বিভিন্নভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এর মাধ্যমে পিচ ডেক বানানো, নেটওয়ার্কিং, অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা, সেলস্ অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন, ব্যবসায়িক ব্যবস্থাপনা, মার্কেটিং এবং ব্র্যান্ডিং, আইনি সহায়তা, বিজনেস মডেল ইত্যাদি বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে যা স্টার্টআপদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে।
স্টার্টআপ চট্টগ্রাম ইনকিউবেটর প্রোগ্রামের মাধ্যমে মোট ১৬০টি স্টার্টআপ আইডিয়ার মধ্য থেকে ২০ টি স্টার্টআপ নির্বাচন করা হয়।
এই আয়োজনের পার্টনার হিসেবে সহযোগিতা করেছে স্টার্টআপ বাংলাদেশ, উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প এবং লাইফ কোচ বাংলাদেশ। বিজ্ঞপ্তি