‘শচীনকে সে দিন ৯৮ রানে আউট করে দুঃখ পেয়েছিলাম’

0
275

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
শচীন টেন্ডুলকারের ব্যাটে সেঞ্চুরি দেখতে চেয়েছিলেন, এমনই চমকপ্রদ দাবি করলেন শোয়েব আখতার। আর সেটাও ২০০৩ সালে সেঞ্চুরিয়নে বিশ্বকাপের গ্রুপ ম্যাচে! ওয়াকার ইউনিসের পাকিস্তান সেই ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে সাত উইকেটে ২৭৩ তুলেছিল। সঈদ আনোয়ারের সেঞ্চুরি বড় ভূমিকা নিয়েছিল নেপথ্যে। জবাবে শচীনের ৯৮ রানের বিস্ফোরক ইনিংস জয়ের ভিত গড়েদিয়েছিল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ভারতের। রাহুল দ্রাবিড়, মহম্মদ কাইফ ও যুবরাজ সিংহের ইনিংসও জয়ে অবদান রেখেছিল।
সেই ম্যাচে শতরানের দোরগোড়া থেকে শচীনকে ফিরিয়েছিলেন শোয়েব আখতার। রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস যদিও দাবি করছেন, শচীনকে আউট করে তিনি দুঃখই পেয়েছিলেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি লাইভ সেশনে প্রাক্তন পাক পেসার বলেছেন, ‘৯৮ রানে শচীন ফেরায় বিষণœ হয়ে পড়েছিলাম। ওটা ছিল স্পেশাল ইনিংস। সেঞ্চুরি করা উচিত ছিল ওর। আমিও চেয়েছিলাম শচীন যেন শতরান করে। যে বাউন্সারে ও আউট হয়েছিল, তাতে আগের মতো শচীনকে ছয় মারতে দেখলেই খুশি হতাম।’
সেই ইনিংস এক দিনের ক্রিকেটে শচীনের কেরিয়ারের অন্যতম সেরা হিসেবে চিহ্নিত হয়। শোয়েবের বাউন্সারে ইউনিস খানকে ক্যাচ দিয়ে আউট হন শচীন। ৭৫ বলের ইনিংসে ছিল এক ডজন বাউন্ডারি ও একটি ছয়। প্রধানত মুম্বইকরের দাপটেই ২৬ বল বাকি থাকতে ছয় উইকেটে আসে জয়। বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে শচীনের আরও এক গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস এসেছিল ২০১১ সেমিফাইনালে। শচীনের জন্যই ফাইনালে উঠেছিল ভারত। আর মহেন্দ্র সিংহ ধোনির দল শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়নও হয়। বিশ্বকাপে এখনও পর্যন্ত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অপরাজিত থেকেছে ভারত।
খবর : আনন্দবাজার’র।