বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের প্রতিহত করা হবে

0
104

নবগঠিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে মো. দিদার হোসেন

‘স্টেশন মাস্টারদের গ্রেড বিন্যাস ও বেতন বৈষম্য বাস্তবায়ন করা ও নিয়োগ বিধি/২০২০ সংশোধন করে অনিয়ম ও বৈষম্য দূর করার পদক্ষেপ গ্রহণ করে স্টেশন মাস্টারদের ন্যায্য দাবি আদায়ে সকল স্টেশন মাস্টাদের অতীতের সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন সংগ্রামে এগিয়ে আসতে হবে। যারা রেল প্রশাসনকে ভুল বুঝিয়ে আমাদের ন্যায্য দাবি আদায়ের লক্ষ্যে অনতিবিলম্বে সুপ্রিম কোর্টে রায় বাস্তবায়নে বাধাগ্রস্ত করছে তাদের চিহ্নিত করতে হবে। আর যারা স্টেশন মাস্টার কর্মচারীদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে সংগঠনের নেতৃত্বকে প্রশ্নের সম্মুখীন করে তাদেরকেও প্রতিহত করা হবে। স্টেশন মাস্টার কর্মচারী ইউনিয়ন একটি রেজিস্ট্রার্ড সংগঠন ও এর গঠনতন্ত্রের ধারাকে অমান্য করে সংগঠনের যে কোন সিদ্ধান্ত সাধারণ নেতাকর্মীরা মেনে নেবে না। নবনির্বাচিত কমিটির সকলকে সংগঠনের গঠনতন্ত্র মেনে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য সচেষ্ট থাকতে হবে।’

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় জিইসি মোড়স্থ হোটেল জামান অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট হল রুমে অভিষেক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার ও কর্মচারী ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি মো. দিদার হোসেন এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ট্রাফিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শাহিদ হোসেন খোকন, বাংলাদেশ রেলওয়ে কল্যাণ ট্রাস্টের পরিচালক জাহিদুল ইসলাম, রানিং স্টাফ ও কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. ওমর ফারুক, স্টেশন মাস্টার ও কর্মচারী ইউনিয়ন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য-কাজি আব্দুর রকিব, মারুফ হোসেন, সায়েফুদ্দিন বশর। অভিষেক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নবগঠিত কমিটির নবনির্বাচিত সভাপতি জাফর উল্লাহ মজুমদার। এতে আরো বক্তব্য রাখেন, কার্যকরি সভাপতি এসএম ফকরুল আলম পারভেজ, সম্পাদক আব্দুস সালাম ভূঁইয়া, সহ-সভাপতি আবু হানিফ, মোহাম্মদ হারুন, শফিকুল ইসলাম, মো. আবু তাহের, মো. মিজানুর রহমান অতিরিক্ত সম্পাদক মো. আবু জাফর মজুমদার, যুগ্ম সম্পাদক মো. রশিদুল ইসলাম, সহ-সম্পাদক মো. লোকমান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শরিফুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক মো. শামছুজ্জামান বাপ্পী, অডিটর মো. মাঈনুদ্দিন মামুন, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক তন্ময় চৌধুরী প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি

সহ-প্রচার সম্পাদক মো. আর্শেল আজিম মোহন, কার্যকরি কমিটির সদস্য মো. আতিকুল ইসলাম, মো. মোতাহের হোসেন, মো. শফিকুল ইসলাম রনি, মো. রাকিবুল ইসলাম, আজিজুল্লাহ আযাদ। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন হিসাব রক্ষক প্রশাসন-১ (সিআরবি) ফেরদৌস উল আলম, অডিটর-পাহাড়তলি নুর হোসেন পুতুল, খাজা হাসান, পিএনএল-সিআরবি মো. মিজানুর রহমান, ট্রেন পরিচালক-চট্টগ্রাম আব্দুল কাদের, এসএম-৪ জানআলী হাট উম্মে সালমা তানিয়া, এএসএম-সিজিপিওয়াই মো. সাইফুল ইসলাম, এএসএম-পটিয়া সামসুন নাহার, আরপিসি-চট্টগ্রাম সাইমুন ইসলাম, বুকিং সহকারী-ষোলশহর ফাতেমা তুজ জোহরা, কর্মচারী-ইয়াছিন, মাসুদুল ইসলাম, আজিম উদ্দিন মিয়াজী, মেজবা উদ্দিন রাজু, বাপ্পি দাশ, জাকির হোসেন, মারুফ, সজিব, মামুন, রাব্বি প্রমুখ। অভিষেক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করে বুকিং সহকারী-ষোলশহর ফাতেমা-তুজ-জোহরা। অনুষ্ঠানে নৈশ প্রীতিভোজের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন কমিটির অডিটর মাঈনুদ্দিন মামুন।