বিদেশ থেকে মানুষ এখানে কাজ করতে আসবে

0
406

বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরেবেসিক স্টিলমিলস কারখানা করবে দেশের অন্যতম শিল্পগ্রুপ পিএইচপি ফ্যামিলি। এর জন্য শিল্পনগরের মিরসরাইয়ের সাগরপারে ৫০০ একর ভূমি বেজা থেকেবরাদ্দ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। একক শিল্প প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিশাল এই জায়গা বরাদ্দ নেওয়া এবং আগামীর সম্ভাবনা নিয়ে সুপ্রভাতের সাথে কথা বলেছেন পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মিজানুর রহমান।
সুপ্রভাত বাংলাদেশ : বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে এতো বিশাল জায়গা নিলেন কেন?
সুফি মিজানুর রহমান : মিরসরাই ইকোনমিক জোনে আগামীর বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে। দেশের অর্থনীতি পরিচালিত হবে এই অঞ্চল থেকে। এখানে লাখ লাখ লোকের কর্মসংস্থান যেমন হবে তেমিনভাবে এখান থেকে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম পরিচালিত হবে। তাই আমরা এই স্থানে বেসিক স্টিলমিলস কারখানা গড়ে তোলার জন্য বেজা থেকে ৫০০ একর জায়গা বরাদ্দ নিয়েছি। সরকার আমাদেরকে পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ সব ধরনের অবকাঠামো সুবিধা নিশ্চিত করবে।
সুপ্রভাত : তাহলে কি এখন দেশে যেসব কোম্পানি রয়েছে সেগুলো বেসিক স্টিল কারখানা নয়?
সুফি মিজানুর রহমান :আমরা এখন বিদেশ থেকে বিলেট আমদানিকরে রড বা স্টিল তৈরি করি। কিন্তু বিলেটের আগে আরো দুটি স্তর রয়েছে। সেই স্তর দুটি তৈরি করতে আমরা বিদেশ থেকে কাঁচামাল আনব এবং তা এখানে তৈরি করব। এর মাধ্যমে দেশে বেসিক স্টিল কারখানা যাত্রা শুরু করবে। আর এজন্যই আমরা আমাদের জায়গাটি সাগরপারে নিয়েছি, যাতে জেটি সুবিধা পাওয়া যায়। জাহাজে করে কাঁচামাল আসবে এবং রপ্তানি কার্যক্রমও এখান থেকেই হবে।
সুপ্রভাত : দেশি বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান এই শিল্প নগরে বিনিয়োগ করছে, কারখানা স্থাপনে এগিয়ে আসছে। একজন বিনিয়োগকারী হিসেবে কেমন সম্ভাবনা দেখছেন?
সুফি মিজানুর রহমান :সাগরের জেগে উঠা ভূমিতে বিশাল এক সম্ভাবনা জেগে উঠেছে। আগামীতে মিরসরাই, চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পর্যন্ত পুরো এই জোনটি হবে বিশাল অর্থনৈতিক অঞ্চল। সাগরপার দিয়ে টেকনাফ পর্যন্ত মেরিন ড্রাইভ নির্মাণ হচ্ছে। এই অর্থনৈতিক অঞ্চল ঘিরেলাখ লাখ লোকের কর্মসংস্থান যেমন হবে তেমনিভাবে দেশে অনেক উদ্যোক্তাও তৈরি হবে। আর এতে মানুষ বিদেশে কর্মের খোঁজে যাওয়ার পরিবর্তে দেশেই চাকরির সুযোগ পাবে। এখানে বিদেশ থেকেও মানুষ কাজ করতে আসবে। শুনলাম ৩০ হাজার একর জায়গা নিয়ে শুরু করলেও এখন আরো নতুন নতুন জায়গা এর আওতায় আনা হচ্ছে। তাতেই বুঝা যাচ্ছে এই অঞ্চলের উপর বিনিয়োগকারীদের দৃষ্টি রয়েছে। পুরো বাংলাদেশসহ এই অঞ্চলের অর্থনীতির চালিকা শক্তি হবে বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর। বেজার নির্বাহি চেয়ারম্যান পবন চৌধুরীর নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে এই শিল্পনগরের কাজ।
সুপ্রভাত : অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং দেশের তরুণ প্রজন্ম সম্পর্কে আপনার অভিমত কি?
সুফি মিজানুর রহমান :অর্থনৈতিক অঞ্চলের মাধ্যমে বিশ্বের নামকরা শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো কারখানা স্থাপন করবে। এর মাধ্যমে দেশের তরুণরা নিজেরাই উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠবে, আমাদের সন্তানরা যাতে চাকরির তালাশ না করে। তবে, একইসাথেতাদের মধ্যে দেশপ্রেম জাগ্রত হতে হবে। তবেই দেশ উন্নত হবে। আর দেশ উন্নত হলে আমরা সবাই ভালো থাকব।