বিতর্কে কাতার বিশ্বকাপ

0
110

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপের আর বছর দেড়েক বাকি। তার আগে তুমুল বিতর্ক বেঁধে গেল মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম বিশ্বকাপকে ঘিরে। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক একাধিক সংবাদমাধ্যমের খবরে প্রকাশিত হয় যে, কাতার বিশ্বকাপ আয়োজনে প্রায় সাড়ে ছ’হাজার পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যু ঘটেছে। যারা কি না ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা থেকে গিয়েছিলেন কাজ করতে। এবং সেই পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যুর সরব প্রতিবাদে নামল চার বারের বিশ্বজয়ী টিম জার্মানি। বৃহস্পতিবার আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে যোগত্য অর্জন পর্বের ম্যাচে জার্সিতে মানবাধিকার রক্ষা নিয়ে সোচ্চার হয় গোটা জার্মানি টিম! জার্সিতে লেখা ছিল একটা লাইন: ‘হিউম্যান রাইটস, অন অ্যান্ড অফ দ্য পিচ।’
আর এরপরই ভাল রকম অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছে আগামী বছর ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ। যে ভাবে প্রয়াত পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতি সমর্থনে দাঁড়িয়েছে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে ধারাবাহিক টিম, তা সত্যিই ব্যতিক্রমী। জার্মানি কোচ জোয়াকিম লো বলে দিয়েছেন, প্লেয়াররা যে এ হেন অভিনব প্রতিবাদ করতে যাচ্ছেন, তা তিনি জানতেন। কিন্তু এই ভাবনা তার মস্তিষ্কপ্রসূত নয়, টিমকে এটা তিনি করতেও বলেননি। ‘প্লেয়াররাই যা করার করেছে। আমরাই প্রথম টিম, যারা এই ঘটনার প্রতিবাদ করলাম,’ বলে দিয়েছেন লো। সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘আমরা সব সময় মানবাধিকারের পক্ষে কথা বলে এসেছি। সেটা কোথায় লঙ্ঘন হয়েছে, সেটা দেখতে যাইনি। কারণ, আমাদের কাছে মূল্যবোধ আগে। তাই আমার মতে, এটা খুবই ভাল আর গুরুত্বপূর্ণ একটা বার্তা। যা জার্মানি দিয়েছে।’
এদিকে ফিফা তারাও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, এ হেন প্রতিবাদের প্রেক্ষিতে তারা কোনও রকম শাস্তির কথা ভাবছে না। কারণ ফিফাও মানবাধিকার রক্ষাকে সমর্থন করে। এক বিবৃতিতে ফিফা জানিয়ে দিয়েছে যে, বিশ্বফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা সব সময় বাক্ স্বাধীনতাকে গুরুত্ব দিয়ে এসেছে। ফুটবলের শক্তিতে সমাজের যতটা উন্নতিসাধন সম্ভব, তা তারা করে এসেছে। তাই প্রতিবাদের বিরুদ্ধাচরণ করা হবে না। কোনও শাস্তির কথা ভাবা হচ্ছে না।