প্রত্যেক উপজেলায় মডেল মন্দির নির্মাণ দাবি

188

জেলা পূজা পরিষদের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দেশের প্রত্যেক উপজেলায় সরকারি উদ্যোগে একটি মডেল মন্দির নির্মাণসহ ৬ দফা দাবি জানিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ। গতকাল সকাল ১১টায় হিন্দু ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান পরিষদ নেতারা। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার দেব।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, এ বছর চট্টগ্রাম জেলার আওতাধীন ১৫ উপজেলায় ১৫২৪টি ও পারিবারিক ৩৮৯টিসহ মোট ১৯১৩টি পূজাম-পে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হবে। বৈশ্বিক করোনা মহামারির কারণে এবার উৎসব পরিহার করে মাঙ্গলিক আনুষ্ঠানিকতায় হবে দুর্গাপূজা। এ সময় পরিষদের পক্ষ থেকে ৬ দফা দাবি তুলে ধরা হয়।
দাবিসমূহ হলো, দেশের প্রত্যেক উপজেলায় সরকারি উদ্যোগে একটি মডেল মন্দির নির্মাণ, মেধস আশ্রমকে ঐতিহ্যবাহী মন্দির হিসেবে তালিকাভুক্ত করে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা, হিন্দুধর্মীয় ফাউন্ডেশন গঠন, শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ৪ দিন সরকারি ছুটি ঘোষণা, সরকারি-বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ ভবনসমূহ আলোকসজ্জিত করা, অনাথ আশ্রম ও জেলখানায় উন্নতমানের খাবার পরিবেশন এবং সরকারি দপ্তরে বিজয়া পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা, দেবোত্তর সম্পত্তি পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ আইন প্রণয়ন এবং অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আইনের যথাযথ বাস্তবায়নে জটিলতা নিরসন করা।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১৯৭২ সালের শারদীয় দুর্গোৎসবের অষ্টমী পূজার দিনের প্রথমে চট্টগ্রাম এবং পরবর্তী সময়ে সারাদেশে একযোগে প্রতিমা ভাঙচুর ও পূজাম-পে হামলা হয়। পূজার্থীরা অষ্টমী তিথিতে দেবী দুর্গার বিসর্জন দিতে বাধ্য হয়েছিল। এমন পরিস্থিতিতে প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে ১৯৭৩ সালে গঠিত হয়েছিল চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদ।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, প্রতিবছর উৎসবরমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়। বৈশ্বিক করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে নিজে সুস্থ থাকা এবং অপরকে নিরাপদ রাখার প্রত্যয়ে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা হবে সংক্ষিপ্ত পরিসরে। আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস, ভয়ভীতিমুক্ত পরিবেশে প্রশাসন, ধর্মবর্ণ-নির্বিশেষে সকল গণতন্ত্রকামী জনগণের সহযোগিতায় শারদীয় দুর্গাপূজা মাঙ্গলিক আনুষ্ঠানিকতায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সুসম্পন্ন হবে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে পূজাম-পের নিরাপত্তা বিধানে দেওয়া পরামর্শ প্রতিপালনের জন্য চট্টগ্রাম জেলার আওতাধীন ১৫ উপজেলা, থানা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও পূজাম-পগুলোকে অবহিত করা হয়েছে।
এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল কুমার পালিত, অসীম দেব, অ্যাডভোকেট নিতাই প্রসাদ ঘোষ, অ্যাডভোকেট চন্দন বিশ্বাস, বিপুল দত্ত, বিজয় গোপাল বৈষ্ণব, বিশ্বজিৎ পালিত, উত্তম শর্মা, কল্লোল সেন, রিমন মুহুরী, দোলন মজুমদার, নিউটন সরকার, মাস্টার অশোককুমার নাথ, কাজল শীল, সব্যসাচী দেব টিপু, মৃনাল কান্তি দাশ প্রমুখ।
শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সভাপতি শ্যামল কুমার পালি