পোশাকশিল্প ঘুরে দাঁড়াচ্ছে

0
37

কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেটের সাথে বিজিএমইএ’র পরিচালনা পর্ষদের সাক্ষাৎ

বর্তমানে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পে চরম বিপর্যয়ের মুখে বন্ধ হয়ে গেছে অনেক কারখানা, ক্রেতারা অর্ডার বাতিল / স্থগিত করেছেন। জাতীয় অর্থনীতিতে এর ব্যাপক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ইতিমধ্যে দৃশ্যমান। পোশাক শিল্পের ভবিষ্যত সুরক্ষা ও শ্রমিকদের মজুরী প্রদানের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় পোশাক শিল্প বর্তমানে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। চট্টগ্রামে বন্দর এবং কাস্টমস্্ সুবিধা থাকায় তুলনামূলক ভাবে পরিবহন খরচ কম হলেও অন্যান্য অবকাঠামোগত সমস্যার কারণে চট্টগ্রামের পোশাক শিল্প বর্তমানে খুবই নাজুক অবস্থায় রয়েছে। এক্ষেত্রে চলমান মন্দাবস্থা উত্তরণে পোশাক শিল্প সংশ্লিষ্ট কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট-এর কার্যক্রমে জটিলতা ও দীর্ঘসূত্রিতার সৃষ্টি হলে চট্টগ্রামে পোশাক শিল্প চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে বন্ধের তালিকা আরো দীর্ঘ হবে। যা এ’মুহূর্তে কোনভাবেই কাম্য নয়।
বন্ড সংশ্লিষ্ট পোশাক শিল্পের বিরাজমান সমস্যা সমূহ দ্রুত সূরাহার নিমিত্তে বিজিএমইএ বন্ডের সাথে সহযোগিতার ভিত্তিতে যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহী। এ’ক্ষেত্রে বন্ডে বিদ্যমান বিভিন্ন স্টেইক হোল্ডারদের নিয়ে গঠিত টেকনিক্যাল কমিটির কার্যক্রম সচল করার জরুরি।
গতকাল কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট, চট্টগ্রাম এর কমিশনার এ.কে.এম. মাহবুবুর রহমান এর সাথে তাঁর কার্যালয়ে বিজিএমইএ’র নব-নির্বাচিত পরিচালনা পর্ষদের সৌজন্য সাক্ষাতে উক্ত আশাবাদ ব্যক্ত করেন বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম।
কাস্টমস্্ বন্ড কমিশনারেট, চট্টগ্রামের কমিশনার এ.কে.এম. মাহবুবুর রহমান বলেন, জাতীয় অর্থনীতি ও আর্থসামাজিক উন্নয়নসহ ব্যাপক কর্মসংস্থানে পোশাক শিল্পের অবদান অনস্বীকার্য। তিনি দেশীয় শিল্প হিসাবে পোশাক শিল্পে বর্তমান মন্দাবস্থা উত্তরণে বন্ড সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম সহজীকরণ করে দ্রুত অনুমোদন প্রদান করা হবে মর্মে আশ্বস্ত করেন। চট্টগ্রামে পোশাক শিল্পে বিরাজমান সমস্যাসহ সার্বিক অবস্থা নিয়ে বক্তব্য রাখেন বর্তমান পরিচালক ও প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম, প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি এরশাদ উল্ল্যাহ, এস.এম. আবু তৈয়ব, নাসিরউদ্দিন চৌধুরী, প্রাক্তন সহ-সভাপতি এ.এম. চৌধুরী সেলিম, প্রাক্তন পরিচালক হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, অঞ্জন শেখর দাশ।
সাক্ষাৎকালে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি রাকিবুল আলম চৌধুরী, পরিচালকবৃন্দ এমডি.এম. মহিউদ্দিন, তানভীর হাবিব, এ.এম. শফিউল করিম খোকন, মো. হাসান জেকি, এম. এহসানুল হক, মিরাজ-ই-মোস্তফা কায়সার প্রাক্তন পরিচালক লিয়াকত আলী চৌধুরী ও মোহাম্মদ মুসা। কাস্টমস্্ বন্ড কমিশনারেট এর পক্ষে অতিরিক্ত কমিশনার মাহফুজুল হক ভূঁইয়া, সহকারী কমিশনার কামরুল ইসলাম প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি