আত্মগোপনে থাকা ৪ সন্তানের জননী ৪১ দিন পর উদ্ধার

0
184

সাতকানিয়া

নিজস্ব প্রতিনিধি, সাতকানিয়া :

সাতকানিয়ায় পরকীয়ার টানে আত্মগোপনে থাকা ৪ সন্তানের জননী আরজুমান আরা বেগম (৩৫) কে উদ্ধার করেছেন পুলিশ। সোমবার রাতে জেলার ভূজপুর থানাধীন পূর্ব ভূজপুর টিটু বড়ুয়ার ভাড়া বাসা থেকে ৪ সন্তানের জননী আরজুমান আরা বেগমকে সন্তানসহ উদ্ধার করা হয়েছে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে ১৫ বছর বয়সী মিশকাতুল জান্নাত সামিরা নামে নবম শ্রেণি পড়ুয়া এক কন্যা সন্তানও রয়েছে। উদ্ধারকৃত অন্য সন্তানরা হলো আরফাতুল ইসলাম (১৩), আরকানুল ইসলাম (১০) ও আরফিন নোমান (৬)।

গতকাল মঙ্গলবার বিকালে চট্টগ্রাম জ্যেষ্ঠ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কৌশিক আহমদ খন্দকারের আদালতে স্ত্রী ও তিন সন্তান ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। জবানবন্দি পরবর্তী আদালত সন্তানদের মায়ের জিম্মায় দেন।

জানা গেছে, চলতি বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে বৈদ্যের পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে উপজেলার ঢেমশা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড উত্তর ঢেমশা মাইজ পাড়ার হোটেল ব্যবসায়ী স্বামী মনির আহমদ প্রকাশ বানু সওদাগরের স্ত্রী আরজুমান আরা বেগম ৪ সন্তানসহ স্বামীর ঘর ছেড়ে পালিয়ে যান। পরদিন ৩০ সেপ্টেম্বর স্বামী বাদী হয়ে এ ঘটনায় সাতকানিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার ৯ দিন পর ৮ অক্টোবর স্ত্রীর বড় ভাই মো. ইলিয়াছ বাদী হয়ে বোনকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণ ও গুম করা হয়েছে মর্মে স্বামীসহ ৪ জনকে আসামী করে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আদালত সাতকানিয়া থানাকে তদন্তের দায়িত্ব দেন। এ মামলা দায়েরের ৪ দিন পর ১২ অক্টোবর  আদালতে গিয়ে স্বামীকে ডিভোর্স দেন স্ত্রী। সর্বশেষ সোমবার রাতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাতকানিয়া থানার এসআই মাহবুবুল হক সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে ভূজপুরের একটি ভাড়া বাসা থেকে দীর্ঘ ৪১দিন পর স্ত্রী ও ৪ সন্তানকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, পরকীয়ার কারণে ৪ সন্তানসহ স্ত্রী স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে ছিল। পরে ভাই স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অপহরণ ও গুম মামলা এবং সর্বশেষ স্ত্রী স্বামীকে ডিভোর্স লেটারও পাঠান। থানায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রী জানান স্বামীর মারধর ও খারাপ আচরণের কারণে তিনি এতদিন সন্তানদের নিয়ে আত্মগোপনে ছিলেন।