মিয়াঁদাদের ডিগবাজি!

0
221

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
দিনকয়েক আগের কথা। ইমরান খানকে যা নয় তাই বলেছিলেন জাভেদ মিয়াঁদাদ। ইমরান খান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু সেসব তোয়াক্কা করেননি তিনি। এমনকি দেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি ন্যূনতম সম্মানটুকু দেখাননি তিনি। সেই মিয়াঁদাদ দিনকয়েকের মধ্যে ডিগবাজি দিয়ে দিলেন। ইমরান খানকে দেওয়া গালিগালাজ ফেরত নিলেন। কেন? কারণ তার ভাইপো ফয়সাল ইকবালকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) ঘরোয়া একটি দলের প্রধান কোচ হিসাবে নিযুক্ত করেছে। তাই রাতারাতি পিসিবি তার কাছে একটি দুর্দান্ত সংস্থা হয়ে গিয়েছে। দিনকয়েক আগেই পিসিবি নিয়ে আজেবাজে মন্তব্য করেছিলেন মিয়াঁদাদ।
এমনিতে তার মতো বিতর্কিত মন্তব্য খুব কম ক্রিকেটারই করেন। মিয়াঁদাদ মুখ খুলেছেন মানেই বিতর্ক। কখনও তিনি বলেন, ভারতে পরমাণু বোমা ছুঁড়বেন। কখনও আবার দেশের প্রধানন্ত্রীকে বেইমান বলে বিস্ফোরণ ঘটান। ৬৩ বছর বয়সী প্রাক্তন অধিনায়ক এবার আচমকা ক্ষমা চেয়ে নিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে। এক টিভি চ্যানেলে সাক্ষাত্কার দেওয়ার সময় তিনি ইমরান খানের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। তিনি বলেছেন, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে পাকিস্তানের পারফরম্যান্স দেখে আমি খুব রেগে গিয়েছিলাম। তাই যা নয় তাই বলে ফেলেছি। আমার কথায় কেউ আঘাত পেলে ক্ষমা করবেন। বিশেষ করে দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী।
ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টে জেতার মতো জায়গায় ছিল পাকিস্তান। কিন্তু শেষমেষ ২৭৭ রান তাড়া করে ইংল্যান্ড টেস্ট জিতে নিয়েছিল। আর তার পরই মিয়াঁদাদ আচমকা ইমরান খান ও পিসিবি কর্তাদের আক্রমণ করেন। তিনি বলেছিলেন, ইমরান খান পিসিবিতে অযোগ্য লোকদের দায়িত্ব দিয়েছেন। দেশের ক্রিকেটের এই দুরাবস্থার জন্য ইমরান খান দায়ি। মিয়াঁদাদ আরও বলেন যে এবার তিনি ইমরান খানকে শিক্ষা দেবেন। কিন্তু ভাইপো কোচ হতেই ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গেলেন মিয়াঁদাদ। তার এই রংবদলের জন্য পাকিস্তানে হাসাহাসি শুরু হয়েছে। খবর : জিনিউজ’র।