চট্টগ্রামের উন্নয়নে প্রত্যেককে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে

0
116

জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। সরকারের নিরলস প্রচেষ্টায় বর্তমানে দেশের প্রত্যেকটি উন্নয়ন কাজ দৃশ্যমান। দেশের অন্যান্য জেলার ন্যায় চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়নে প্রত্যেককে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। চট্টগ্রামে যে সকল প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে সেগুলো দ্রুত বাস্তবায়নে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা সকলে মিলে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের মহাসড়কে সামিল হলে ২০২১ সালের মধ্যে এদেশকে মধ্যম আয়ের, ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জন ও ২০৪১ সালের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ সম্ভব হবে। তিনি বলেন, করোনা রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসায় সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে আরো আন্তরিক হতে হবে। জেলার কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর সেবার মানোন্নয়নে চিকিৎসক-কর্মচারীদের আরো আন্তরিক হতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে আয়োজিত জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
করোনা পরিস্থিতিতিতে বেসরকারি হাসপাতালগুলো বেপরোয়া ব্যবসা করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আবু হাসান সিদ্দিকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সমন্বয় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর (সদর), ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আসিফ খান, বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের পরিচালক মো. আবু সাইদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমেদ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আক্তারুজ্জামান, উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল , এম.এ মোতালেব (সাতকানিয়া), হোসাইন মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, স্বজন কুমার তালুকদার , মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী , জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল , চৌধুরী মোহাম্মদ গালিব সাদলী, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. শহীদুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন , মোমেনা আক্তার, মোহাম্মদ রুহুল আমীন , মো. সায়েদুল আরেফিন, জোনায়েদ কবীর সোহাগ, মাসুদুর রহমান , শাহিনা সুলতানা , শেখ জোবায়ের আহমদ, আহসান হাবিব জিতু, ইমতিয়াজ হোসেন, মিনহাজুর রহমান, ফয়সাল আহমেদ, আব্দুস সালাম চৌধুরী, জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার, এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ওয়াহিদুজ্জামান, সওজ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জুলফিকার আহমেদ, জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো.রেয়াজুল হক, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আবু নঈদ মোহাম্মদ শফিউল আলম, উত্তর বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক শাহ চৌধুরী, উপকুলীয় বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এস এম গোলাম মাওলা, সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. শহীদুল ইসলাম, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. সেলিম উদ্দিন, শিক্ষা প্রকৌশল কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম দেলোয়ার হোসেন, মনোরঞ্জন দে, ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক নিউটন দাস, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী অভিজিৎ চৌধুরী, জেলা কালচারাল অফিসার মোসলেম উদ্দিন, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা নুরুল আবছার ভূঁইয়া, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. হাসানুজ্জামান, নির্বাচন কর্মকর্তা কামরুল আলম, ফটিকছড়ি পৌর মেয়র ইসমাইল হোসেন, বোয়ালখালী পৌর মেয়র হাজী আবুল কালাম, বারৈয়ারহটি পৌর মেয়র মো. নিজাম উদ্দিন, প্রিয়াংকা দত্ত, পরিবেশ অদিদপ্তরের সিনিয়র কেমিস্ট জান্নাতুল ফেরদৌস প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি