অপহৃত মোসলেমকে উদ্ধারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

0
350

পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
পটিয়ায় অপহৃত পিকআপ চালক মোসলেম উদ্দীনকে দীর্ঘ ১১ মাসেও পুলিশ উদ্ধার করতে না পারায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন ভিকটিমের পরিবারের সদস্যরা।
গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভিকটিমের ছোট ভাই মো. নাঈমুর রহমান (ইয়াকুব)।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘গত ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে পটিয়া থানার সাতগাউছিয়া দরবার শরীফের পাশে এটি আর মুরগীর ফার্ম সংলগ্ন রাস্তার উপর গাড়িতে লাকড়ি লোড করার সময় কয়েকজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে আমার মেজো ভাই মোসলেমকে পরিকল্পিতভাবে অপহরণ করে। এ সময় গাড়ির হেলপার ও ২ জন লোকও ছিল। কিন্তু তাদের নেওয়া হয়নি। অনেক খোঁজাখুঁজির পর ঘটনার ১ দিন পর আমার বড় ভাই আবু তাহের বাদি হয়ে ২৩ ফেব্রুয়ারি পটিয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলা করার পর পুলিশ মোট ৫ আসামিকে গ্রেফতার করে। কিন্তু দুঃখের বিষয় আসামিরা ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিলেও পুলিশ ভিকটিমকে এখনো উদ্ধার করতে পারেনি। এখন প্রধানমন্ত্রীই আমাদের একমাত্র ভরসাস্থল। প্রধানমন্ত্রী চাইলে সবকিছুই সম্ভব। তাই মোসলেম উদ্দীনকে উদ্ধারে প্রধামন্ত্রীর কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করছি এবং মামলাটির তদন্তভার দ্রুত পিবিআইকে হস্তান্তরের জোর দাবি জানাচ্ছি।
ভিকটিমের স্ত্রী ফরিদা আক্তার বলেন, ‘আমার স্বামীকে অপহরণের পর ১ ছেলে ২ মেয়ে নিয়ে খুবই কষ্টে আছি। অপহরণের ১১ মাস পার হলেও আমার স্বামী উদ্ধার না হওয়ায় চরম অনিশ্চতা ও দুশ্চিন্তায় জীবনযাপন করছি। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন স্বামীকে জীবিত উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিন।’
ভিকটিমের ছেলে মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘আমার আব্বুকে আমাদের কাছে ফিরিয়ে দেন। আব্বু ছাড়া অনেক অসহায়, অনেক কষ্টে আছি।’
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ভিকটিমের মামা ফজলুল হক চৌধুরী, ফরিদা বেগম, স্ত্রী ফরিদা আক্তার, ছেলে মো. সাজ্জাদ হোসেন, মেয়ে মোছাম্মৎ খুশবু আক্তার প্রমুখ।