৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা

0
147

রগকাটা যুবকের  পরিচয় মিলেছে

নিজস্ব প্রতিনিধি, পটিয়া :
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরভকান মহাসড়কের পটিয়া উপজেলার কুসুমপুরা এলাকা থেকে ড়শ শনিবার দুপুরে যে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়, তার পরিচয় মিলেছে। উদ্ধারকৃত মরদেহ প্রবাসী মো. নবী হোসেনের (২৭)।
তিনি কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানাধীন পুরানচর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের পুত্র। পরকীয়ার জের ধরে প্রবাসী নবী হোসেনকে পরিকল্পিতভাবে দুপায়ের রগ কেটে হত্যা করা হয়। হত্যার ঘটনায় নবী হোসেনের ভাই কবির হোসেন বাদী হয়ে পটিয়া থানায় শিউলির স্বামী আনোয়ার হোসেন (৪৫), শিউলি বেগম (৪০), শিউলি বেগমের পুত্র সাব্বির হোসেনসহ (২২) ৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নবী হোসেন দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকলেও করোনা পরিস্থিতির শুরুতে দেশে ফেরেন। ওই সৌদিয়া প্রবাসীর মামাতো ভাই আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী শিউলি বেগমের সঙ্গে নবী হোসেনের প্রেমের সম্পর্ক হয়। এক পর্যায়ে তিন সন্তানের জননী শিউলিকে নিয়ে নিজ এলাকা থেকে পালিয়ে ভাড়া বাসায় ছিলেন। বিষয়টি শিউলির স্বামী আনোয়ার হোসেন জানতে পেরে ক্ষুব্ধ হয়ে পরিকল্পিতভাবে তাকে খুন করেছেন বলে পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে। উল্লেখ্য, গত শনিবার পটিয়া থেকে উদ্ধার হওয়া ব্যক্তির সঙ্গে একটি পরিচয়পত্র ছিল। এর সূত্রধরে চাঞ্চল্যকর এই খুনের তথ্য মিলেছে।
পটিয়া থানার উপপরিদর্শক মো. আক্কাস মিয়া জানিয়েছেন, পরকীয়ার জেরে প্রবাসীকে খুন করা হয়েছে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরাকান মহাসড়কের পটিয়া উপজেলার কুসুমপুরা ইউনিয়নের রাস্তার পাশে ঝোপঝাড়ে প্রবাসী নবী হোসেনের মরদেহ কে বা কারা ফেলে যায়। এ ঘটনায় পটিয়া থানায় মামলা হয়েছে এবং অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির পরিচয় মিলেছে।