১শ হেক্টর ম্যানগ্রোভ বাগান করছে বন বিভাগ

0
249

মিরসরাই উপকূলীয় অঞ্চল
৩ বছরের মধ্যে কেওড়া চারাগুলো সুন্দর বাগানে পরিণত হবে

রাজু কুমার দে, মিরসরাই :
মিরসরাই উপকূলীয় অঞ্চল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরকে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা করতে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে সুফল প্রজেক্টের আওতায় ১শত হেক্টর বনাঞ্চল করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে চট্টগ্রাম উপকূলীয় বন বিভাগ। ইতিমধ্যে মিরসরাই উপকূলীয় দুইটি বিটের অধীনে ১শত হেক্টর জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। বীজতলা তৈরি করে ফেলা হয়েছে কেওড়া, বাইন ও গেওড়া বীজ।
আগামী মার্চের মধ্যে বীজতলার চারাগুলো উত্তোলন করে রোপণ করা হবে বলে জানান মিরসরাই উপকূলীয় রেঞ্জ কর্মকর্তা এরফান উদ্দিন।
মিরসরাই উপকূলীয় বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, মিরসরাই উপজেলার বামনসুন্দর ও মঘাদিয়া বিটের আওতায় ১শত হেক্টর ম্যানগ্রোভ বাগান করার পরিকল্পনা নেয় চট্টগ্রাম বন বিভাগ। ওই দুই বিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে নির্মিত সুপার ডাইকের বাইরে ৩ নম্বর সড়কের বসুন্ধরা সাইট অফিসের দক্ষিণ পাশে ৩০ হেক্টর ও অর্থনৈতিক অঞ্চলের ১ নম্বর ব্রিজের পাশে ৭০ হেক্টর জমি নির্ধারণ করা হয়। ইতিমধ্যে ৫০০ বেডের বীজতলা তৈরি করে বীজ ফেলা হয়েছে। প্রতি হেক্টরে ৪ হাজার ৪শত ৪৪টি কেওড়া, বাইন ও গেওড়া প্রজাতির চারা রোপণ করা হবে। আগামী মার্চের মধ্যে চারাগুলো উত্তোলন করে প্রতি এক থেকে দেড় ফিট দূূরত্বে রোপণের পরিকল্পনা রয়েছে। চারা রোপণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৫ লাখ।
জানা গেছে, মিরসরাইয়ের উপকূলীয় অঞ্চল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরকে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা করতে ‘সুফল’ প্রজেক্টের আওতায় ম্যানগ্রোভ বাগান সৃষ্টির পরিকল্পনা নেয় চট্টগ্রাম উপকূলীয় বন বিভাগ।
সরেজমিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে গিয়ে দেখা গেছে, সুপার ডাইকের বাইরে ৫০০ বেডের নার্সারি তৈরি করে বীজ বপণ করা হয়েছে। ফেলা হয়েছে কেওড়া, বাইন ও গেওড়া প্রজাতির বীজ। কয়েক জন চাষিকে বীজতলা তৈরি কওে সেই বীজ বপন করতে দেখা যায়।
মিরসরাই উপকূলীয় রেঞ্জ কর্মকর্তা এরফান উদ্দিন জানান, মিরসরাই উপকূলীয় অঞ্চলকে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা করতে চট্টগ্রাম উপকূলীয় বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এসএম গোলাম মওলার তত্ত্বাবধানে মিরসরাইয়ের উপকূলীয় অঞ্চলে ম্যানগ্রোভ বাগান করা হচ্ছে। সুফল প্রজেক্টের আওতায় ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে ১শত হেক্টর এলাকায় এই বাগান তৈরি করা হবে। চারাগুলো রোপণের পর ৩ বছরের মধ্যে সুন্দর বাগানে পরিণত হবে।
চট্টগ্রাম উপকূলীয় বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এসএম গোলাম মওলা জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে বনের বিকল্প নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বনাঞ্চল সৃষ্টিতে অধিক গুরুত্ব দিয়েছে। তাই মিরসরাইয়ের উপকূলীয় অঞ্চল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরকে প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা করতে সুফল প্রজেক্টের আওতায় ১শত হেক্টর ম্যানগ্রোভ বাগান করা হচ্ছে।