স্বপ্নবিলাসী মা

0
216

 

সারাফ নাওয়ার :

দশ বছরের শিশু রুবিনা। বাবা নেই। মা- ই তার সব। বাবা মারা যাওয়ার পর থেকে মা-ই সংসার চালান। মা লোকের বাড়ি কাজ করেন। ভোর বেলা কাজে যান। বিকেল হয়ে যায় বাড়ি ফিরতে। কখনো কর্তার বাড়ি থেকে বেঁচে যাওয়া খাবার মেয়ের জন্য নিয়ে আসেন। তবে প্রতিদিন তিন বেলা পেটভরে খাবার জোটে না তাদের। কিন্তু মা সবসময় নিজে না খেয়ে রুবিনাকে খাওয়ানোর চেষ্টা করেন। রুবিনা ক্লাস ফোরে পড়ে। মায়ের স্বপ্ন রুবিনা অনেক বড় হবে। ভালো চাকরি করবে। মানবিক মানুষ হয়ে অসহায়কে সাহায্য করবে। মা সবসময় তাকে ভালো রাখতে চান। ঈদের সময় ভালো পোশাক কিনে দিতে পারেন না বলে আঁচলে মুখ লুকিয়ে কাঁদেন। রুবিনা মায়ের কষ্ট বোঝে। তাই সে খুব মন দিয়ে পড়াশোনা করে। তবে এক সপ্তাহ হলো মায়ের জ্বর হয়েছে।মা কাজে যেতে পারছেন না।

মায়ের জন্য ঔষধ কেনার মতো টাকা নেই বাসায়। তাই সে কয়েকদিন ধরে স্কুলে না গিয়ে মা যেখানে কাজ করেন সেখানে কাজ করতে গেল এবং মালিককে মায়ের অসুস্থতার কথা বলে ঔষধ কেনার জন্য টাকা চেয়ে নিল। সে ফেরার পথে ঔষধ কিনে আনলো এবং মাকে বলল সে স্কুলে না গিয়ে কাজে গিয়েছিল। এতে মা খুব কষ্ট পান এবং বলেন, ‘তুমি স্কুলে না গিয়ে ভুল করেছ। এতে তোমার পড়ার ক্ষতি হয়েছে।’ আসলে মায়েরা এমনই হয়। প্রত্যেকের মা আলাদা। কিন্তু স্বপ্নবিলাসী মায়ের সন্তানের প্রতি ভালোবাসা একই।

 

শ্রেণি : ১০ম, কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কক্সবাজার