রোনালদোকে আর দলে রাখতে চায় না জুভেন্টাস

0
164
গোল করে দু’হাত মেলে উদযাপনে ব্যস্ত রোনালদো- ইন্টারনেট

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
চলতি মরশুমটাই শেষ। ২০২২ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার আগেই তাকে অন্য ক্লাবের হাতে তুলে দিতে চায় তার বর্তমান ক্লাব জুভেন্টাস। কিন্তু দুরন্ত ফর্মে থাকা সত্ত্বেও হঠাত কেন এমন সিদ্ধান্ত নিতে হল ইতালি জায়ান্টদের? অন্দরমহলে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে, আগামী বছর ৩৬-এ পা দিতে চলা রোনালদোর থেকে খুব বেশি প্রত্যাশা করছে না জুভেন্টাস কর্তৃপক্ষ। এমনকি করোনা ভাইরাসের জেরে ক্লাব যে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে তাতে রোনালদোর পারিশ্রমিক বহন করা এককথায় অসম্ভব হয়ে পড়ছে ইতালির চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটির জন্য।
প্রথম দু’মরশুমেই ইতালির ক্লাবটির হয়ে জাত চিনিয়েছেন সিআর সেভেন। দু’বারই জুভেন্টাসের জার্সি গায়ে মরশুমের সর্বোচ্চ গোলস্কোরার হয়েছেন পর্তুগিজ ফুটবল মায়েস্ত্রো। কিন্তু রোনালদো জুভেন্টাসের থেকে যে পারশ্রমিক পেয়ে থাকেন (বার্ষিক ৩১ মিলিয়ন ইউরো), তা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া পাওলো দিবালার তুলনায় পাঁচ গুণ বেশি। তাই ইতালির প্রথম সারির এক সংবাদপত্রের রিপোর্ট অনুযায়ী আগামী গ্রীষ্মে ট্রান্সফার উইন্ডোতে রোনালদোকে বিক্রি করে দিতে প্রস্তুত ‘ওল্ড লেডি’। তাতে গত কয়েকবছরে পর্তুগিজ তারকার পিছনে বরাদ্দ অর্থ যদি পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়।
উল্লেখ্য, ২০১৮ রিয়াল মাদ্রিদ থেকে তারকা ফুটবলারকে নিয়ে চমকে দিয়েছিল জুভেন্টাস। দু’মরশুমেই ক্লাবের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে নামের প্রতি সুবিচার করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো। তবে দু’বারই দলকে সিরি-এ চ্যাম্পিয়ন করলেও রোনালদোকে এনেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ভাগ্য ফেরেনি জুভেন্টাসের। তাতেই হয়তো খানিকটা মোহভঙ্গ হয়েছে জুভেন্টাস কর্তৃপক্ষের। তবে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে জুভেন্টাস ছেড়ে দিতে চাইলে অন্যান্য দলগুলো যে কোমর বেঁধে ক্রিশ্চিয়ানোকে দলে নেওয়ার জন্য লাফাবে সেটা একপ্রকার নিশ্চিত। পাশাপাশি ২০২০-২১ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ক্লাবের প্রত্যাশা পূরণ করলে জুভেন্টাস তাদের সিদ্ধান্ত বদল করে কীনা, সেদিকেও চোখ থাকবে অনুরাগীদের।
উল্লেখ্য, রোববাসরীয় সিরি-এ’তে ল্যাজিওর বিরুদ্ধেও গোল করলেন ক্রিশ্চিয়ানো। চলতি মরশুমে পাঁচ ম্যাচে এই নিয়ে ৬ গোল হয়ে গেল পর্তুগিজের নামের পাশে। তবে রোনালদোর গোলে এদিন জয় আসেনি জুভেন্টাসের। সংযুক্তি সময়ে গোল শোধ করে এদিন ঘরের মাঠে এক পয়েন্ট তুলে নেয় ল্যাজিও। পাশাপাশি সদ্য করোনা সারিয়ে মাঠে ফেরা সিআর সেভেন এদিন ম্যাচে চোটের কবলে পড়েন। ল্যাজিও মিডফিল্ডার লুইজ আলবার্তোর সঙ্গে এদিন গোড়ালিতে চোট পান ক্রিশ্চিয়ানো। ৭৬ মিনিটে তার পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামেন পাওলো দিবালা। খবর : কলকাতাটোয়েন্টিফোর’র।