ম্যানচেস্টারের হয়ে প্রথম হ্যাটট্রিক মার্শালের

0
226

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
ম্যানচেস্টারের ক্লাবে ৭ বছরের হ্যাটট্রিক-খরা কাটালেন ফরাসি স্ট্রাইকার অ্যান্থনি মার্শাল। ফার্গুসনের কোচিং জমানার অন্তিম মরশুমে লাল ম্যানচেস্টারের হয়ে শেষবার হ্যাটট্রিক করেছিলেন ডাচ স্ট্রাইকার রবিন ভ্যান পার্সি। ২২ এপ্রিল, ২০১৩ অ্যাস্টন ভিলার বিরুদ্ধে ভ্যান পার্সির হ্যাটট্রিকে ২০তম প্রিমিয়র লিগ খেতাব নিশ্চিত করেছিল ম্যান ইউ।
তারপর বহু স্ট্রাইকার এসেছেন গিয়েছেন, কিন্তু প্রিমিয়র লিগে ম্যান ইউ’য়ের হয়ে একই ম্যাচে তিন-তিনবার বিপক্ষের জালে বল ঠেলতে পারেননি কেউই। বুধবার সেই খরা কাটালেন মার্শাল। শেফিল্ড ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে লাল ম্যানচেস্টারের হয়ে ফার্গুসন পরবর্তী জমানায় প্রথম হ্যাটট্রিক করে নজির গড়লেন তিনি। তার হ্যাটট্রিকে ভর করেই শেফিল্ডকে ৩-০ গোলে হারাল সোল্কজায়েরের দল একইসঙ্গে শেষ চারে শেষ করার লড়াইয়ে তারা ভেসে থাকল দারুণভাবে।
তবে সবকিছু ছাপিয়ে এদিন শিরোনামে শুধুই মার্শাল। ফরাসি স্ট্রাইকারের হ্যাটট্রিকের খবর শুনে সোশ্যাল মিডিয়ায় তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করলেন রবিন ভ্যান পার্সি। কিছুটা মজার ছলেই প্রাক্তন ম্যান ইউ স্ট্রাইকার লেখেন, ‘অনেকটা সময় লেগে গেল। তবে খুশি এই ভেবে যে ৭ বছর বাদে ব্যাটনটা কেউ গ্রহণ করল। হ্যাটট্রিকের জন্য অ্যান্থনি মার্শালকে অভিনন্দন।’
এদিন আপফ্রন্টে সতীর্থ মার্কাস রাশফোর্ডের জোরালো ড্রাইভ গোলে ঠেলে খাতা খোলেন মার্শাল। ২৪ মিনিটে অ্যারন বিশাকার ডানপ্রান্তিক ক্রস নিখুঁত প্লেসিং’য়ে তেকাঠিতে রেখে দলের জয় নিশ্চিত করেন ফরাসি স্ট্রাইকার। তবে হ্যাটট্রিকের অন্বেষণ জারি ছিল দ্বিতীয়ার্ধেও। ৭৪ মিনিটে রাশফোর্ডের সঙ্গে বক্সের মধ্যে ওয়ান-টু খেলে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে আলতো চিপে হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করেন মার্শাল।
ম্যাচের পর প্রিয় ছাত্রকে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন কোচ ওলে সোল্কজায়ের। সতীর্থের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন মিডফিল্ডার নেমাঞ্জা ম্যাটিচও। তার কথায়, ‘এই হ্যাটট্রিক মার্শালের আত্মবিশ্বাস জোগাবে। এটা ভীষণ দরকার ছিল ওর জন্য। আজকের ম্যান অফ দ্য ম্যাচ ওই। প্রত্যেকটা সুযোগ কাজে লাগিয়েছে।’
খবর : কলকাতাটোয়েন্টিফোর’র।