মৃত্যুর নতুন রেকর্ড দেখলো দেশ

0
76
করোনায় মৃত ব্যক্তিদের দাফনে যথেষ্ঠ সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়

২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৬৬ জন

সুপ্রভাত ডেস্ক <
করোনা সংক্রমণের পর থেকে মৃত্যু ও শনাক্তের নতুন রেকর্ড হয়েছে। করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৬৬ জন। এর আগে গত বছরের ৩০ জুন সর্বোচ্চ মৃত্যু ছিল ৬৪ জন।
অন্যদিকে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন সাত হাজার ২১৩ জন, যা একদিনে এযাবৎকালের সর্বোচ্চ।
মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।
গত ২৯ মার্চ আগের সব রেকর্ড ভেঙে করোনা শনাক্ত হয় পাঁচ হাজার ১৮১ জন। সেই রেকর্ড ভেঙে ফের ৩১ মার্চ শনাক্ত হয় পাঁচ হাজার ৩৮৫ জন। ১ এপ্রিল শনাক্তের রেকর্ড ভেঙে দাঁড়ায় ছয় হাজার ৪৬৯ জন। ২ এপ্রিল আবারও রেকর্ড ভেঙে শনাক্ত দাঁড়ায় ছয় হাজার ৮৩০ জন। এরপর ৪ এপ্রিল সাত হাজার ছাড়িয়ে একদিনে শনাক্ত দাঁড়ায় ৭ হাজার ৮৭ জন। এরপর গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ শনাক্ত এবং মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো। খবর বাংলাট্রিবিউন।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৩৪ হাজার ৩৬০টি, অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৪ হাজার ৩১১টি। এখন পর্যন্ত ৪৮ লাখ ৪৭ হাজার ৯৩৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৯৬৯ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ ৫ লাখ ৫৮ হাজার ৩৮৩ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, শনাক্ত বিবেচনায় গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতি ১০০ নমুনায় ২১ দশমিক ০২ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত ১৩ দশমিক ৪৪ শতাংশ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত বিবেচনায় প্রতি ১০০ জনে সুস্থ হয়েছে ৮৫ দশমিক ৬৯ শতাংশ এবং মারা গেছে ১ দশমিক ৪৪ শতাংশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৩৯ জন পুরুষ এবং নারী ২৭ জন। এখন পর্যন্ত পুরুষ সাত হাজার ৪৩ জন এবং নারী মৃত্যুবরণ করেছেন দুই হাজার ৩৪১ জন। বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায় যায়, ৬০ ঊর্ধ্ব ৪১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৭ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁচ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুই জন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন মারা গেছেন। বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগেই মারা গেছেন ৫৪ জন, চট্টগ্রামে চার জন, রাজশাহীতে তিন জন, খুলনায় দুই জন, বরিশালে দুই জন এবং সিলেটে একজন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ৬৪ জন এবং বাড়িতে মারা গেছেন দুই জন।