মৃত্যুবার্ষিকীর আলোচনা সভা : নূর আহম্মদ চেয়ারম্যান অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষার প্রবর্তক

0
198

‘চট্টগ্রাম শহরে যা কিছু গৌরবের এবং জনকল্যাণকর তার ভিত্তিস্থাপক ছিলেন নূর আহম্মদ চেয়ারম্যান। তিনি প্রাইমারি শিক্ষা ব্যবস্থাকে অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক করে এতদঞ্চলে নতুন ধারণার জন্ম দিয়েছিলেন।’ গতকাল বিকেলে আন্দরকিল্লা চসিক পুরাতন ভবনের কে বি আবদুস সাত্তার মিলনায়তনে চট্টগ্রাম পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান ও উপমহাদেশে অবৈতনিক প্রাথমিক শিক্ষার প্রবক্তা নূর আহম্মদ চেয়ারম্যানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন এসব কথা বলেন।
প্রশাসক বলেন, নূর আহম্মদ চেয়ারম্যান নগরবাসীর তিক্ত বাস্তবতা উপলব্ধি করে ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী সকল শিশু-কিশোর-কিশোরীকে স্কুলে ভর্তি ও নিয়মিত স্কুলে পাঠানোর কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছিলেন। নূর আহম্মদ চেয়ারম্যানের বিচক্ষণতা ও দূরদর্শী সিদ্ধান্ত তার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন ও চিন্তার প্রসারতাকে শুধু এগিয়ে নেয়নি, বরং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার শ্রেষ্ঠবন্দর ও বাণিজ্যনগরী চট্টগ্রামকে বিশ্ব ইতিহাসে নতুনভাবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন। চট্টগ্রাম শুধু যে ব্যবসা-বাণিজ্যের কেন্দ্র হিসেবে নয়, শিক্ষাক্ষেত্রেও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় শ্রেষ্ঠ আসনটি দখল করেছি। সেকালে চট্টগ্রামই একমাত্র নগরী বা পৌরশহর, যার শিক্ষার হার অবিভক্ত বাংলায় সর্বোচ্চ পর্যায়ে ঠাঁই করে নিয়েছিল।
প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন আরো বলেন, নুর আহম্মদ চেয়ারম্যান এক ক্ষণজন্মা মহাপুরুষ। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রথম স্থান অর্জন করে এমএ ডিগ্রি লাভ করায় স্বর্ণপদকে ভূষিত হয়েছিলেন। তার মতো মেধাবী শিক্ষাবিদ তৎকালীন সময়ে বিরল ছিল। নূর আহম্মদ চেয়ারম্যান চট্টগ্রাম পৌরসভার চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় এ অঞ্চলে অবৈতনিক শিক্ষার জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন।
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়–য়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক সেলিম জাহাঙ্গীর, সালাউদ্দিন মাহমুদ, আবদুস সালাম মাসুম, প্রশাসকের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, আবু তালেব বেলাল, প্রধান শিক্ষক আলী আকবর, আলী আজম প্রমুখ। এছাড়া গতকাল সকালে অবৈতনিক প্রাথমিক শিক্ষার প্রবক্তা নূর আহম্মদ চেয়ারম্যানের ৫৬তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলকরনে মরহুমের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মরহুমের দৌহিত্র অধ্যাপক সেলিম জাহাঙ্গীর, নগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক মশিউর রহমান, আবদুর রহমান, মাহবুল হক সুমন, শওকত হোসেন, আবদুস সালাম মাসুম, মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, মো. নাছির প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি