মাদক সেবন নিয়ে দীপিকাকে কটাক্ষ সোনু নিগমের!

0
203

সুপ্রভাত ডেস্ক :
সুশান্ত সিং রাজপুত কি আত্মঘাতী হয়েছিলেন? নাকি তাকে খুন করা হয়েছে। এই প্রশ্নের উত্তরের খোঁজে নেমে কেঁচো খুঁড়তে কেউটে বেরিয়ে আসছে। তদন্তের মোড় ঘুরেছে ঘটনায় মাদক যোগের দিকে। যার জেরে অভিনেত্রী রকুলপ্রীত সিং থেকে দীপিকা পাড়–কোন, শ্রদ্ধা কাপুর, সারা আলি খানকে তলব করেছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। আর দীপিকার মতো তারকার নাম মাদক সেবনের সঙ্গে জড়ানোয় নাকি বেজায় খুশি হয়েছেন সোনু নিগম! টুইট করে দীপিকাকে নিয়ে মশকরাও করেছেন! সেই টুইট আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন খোদ শ্রমমন্ত্রী! জল এতদূর গড়ানোর পরই মেজাজ হারান সোনু। ক্ষুব্ধ সোনু জানিয়ে দেন, তিনি টুইটারেই নেই। তার নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে এই কা-কারখানা চলছে।
বি-টাউনের বিতর্ক থেকে নিজেকে দূরে রাখতেই পছন্দ করেন সোনু। সাতে-পাঁচে থাকেন না। গত তিন বছর ধরে টুইটারেও নেই তিনি। অথচ তার নামে অজগ্র অ্যাকাউন্ট খুলে যা ইচ্ছা তাই পোস্ট করা হচ্ছে। ইনস্টাগ্রামে ভিডিও বার্তায় এই নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন বলিউডের অতি জনপ্রিয় গায়ক সোনু নিগম। দেশে সাইবার পুলিশ বলে কিছু নেই বলেও তোপ দাগেন তিনি। সোনুর কথায়, ‘শ্রমমন্ত্রীই যদি না বোঝেন যে ওটা ভুয়ো অ্যাকাউন্ট, তাহলে সাধারণের থেকে আর কী প্রত্যাশা করা যায়। আর যতবারই ভুয়ো অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হয়, ততবারই নতুন করে খুলে যায়। সাইবার পুলিশ বলে কিছু নেই। পুলিশদের লজ্জা হওয়া উচিত। আমি কারও বদনামে আনন্দ পাই না। তাই আমায় এর মধ্যে জড়াবেন না। সুশান্ত আত্মঘাতী না খুন- এই মামলা এখন অত্যন্ত নোংরা পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে। একটা দেশের ভাবমূর্তি তৈরি হয় সেই দেশের মূল বিষয়গুলি দিয়ে। এখন দেশের কী পরিচয় হচ্ছে দেখুন। আমি নিজেকে নিয়েই ভাল আছি। তাই এই পোস্ট শেয়ার করে অযথা গুজব ছড়াবেন না।’
এদিকে মাদক যোগে নাম জড়ানোর পর থেকেই শিরোনামে রকুলপ্রীত। কিন্তু তাকে নিয়ে সংসাবদমাধ্যম যে সমস্ত খবর করে চলেছে, তা একেবারেই পছন্দ হচ্ছে না অভিনেত্রীর। আর এই কারণেই দিলি¬ হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।। মামলা অন্তর্বর্তী সময়ে তার নামে যাতে কোনও খবর না দেখানো হয়, সেই আরজিই জানিয়েছেন।
মাদক যোগে শনিবারই গ্রেফতার করা হয়েছে করণ জোহরের প্রোডাকশন হাউস ধর্মা প্রোডাকশনের প্রাক্তন কর্মী ক্ষীতিশ রবিপ্রসাদকে। তাকে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত ঘঈই রিমান্ডে রাখা হয়েছে। যদিও এখনও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে চলেছেন ক্ষীতিশ। তবে শোনা যাচ্ছে, তার বাড়ি থেকে স্বল্প পরিমাণ মাদক উদ্ধার করেছেন ঘঈই আধিকারিকরা। খবর : সংবাদপ্রতিদিন’র।