ভ্যাকসিন নিলে আক্রান্তের সম্ভাবনা খুব কম

0
279

কাঁকন দেব <<
করোনার প্রকোপ বাড়ার সাথে সাথে বিশ্বব্যাপী টিকাদানও শুরু হয়েছে। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ আমেরিকা। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি মানুষ, মারা গেছেন পাঁচ লাখের বেশি। একই সাথে দেশটিতে জরুরি ব্যবহারে তিনটি টিকার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এগুলো হল ফাইজার-বায়োটেক, মর্ডানা ও জনসন অ্যান্ড জনসন।
নিউইয়র্কের একজন চিকিৎসক দুই ডোজ টিকা নেওয়ারও পরও করোনা পজিটিভ হয়েছেন। তার সারা শরীরে ব্যথা অনুভূত হয়। একইসাথে তার মুখের স্বাদ গন্ধ চলে যায়। তিনি ভেবেছিলেন টিকা নেওয়ার পর করোনা আক্রান্ত হবেন না। এরপরও করোনা পজিটিভ হন।
তিনি বলেন, এটি তার জন্য বেদনাদায়ক। সেই চিকিৎসক জানান, যারা দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন, তাদের মধ্যে হয়তো খুব কম সংখ্যক মানুষের করোনা হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রে অনেক মানুষ এক ডোজ টিকা পেয়েছেন। দুই ডোজ পেতে সময় লাগবে। তবে এখনি উপসংহারে আসা যাবে না যে, টিকার ডোজ সম্পন্ন করার পর কতোজন করোনা আক্রান্ত হবেন। তবে দুটি গবেষণার ফলাফল বলছে, টিকার ডোজ সম্পন্ন করার পর করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা বিরল।
যুক্তরাষ্ট্রে যারা দুই ডোজের টিকা নিয়েছেন, তাদের মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বিরল। সম্প্রতি দুটি গবেষণায় দেখা গেছে, ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস সাউদার্ন মেডিক্যাল কলেজের ৮১২১ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী টিকার ডোজ সম্পন্ন করার পর চারজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। অপরদিকে ১৪৯৯০ জন স্বাস্থ্যকর্মী করোনার দুই ডোজ টিকা নেওয়ার পর সাতজনের করোনা পজিটিভ হয়েছে। মর্ডানা ও ফাইজারের দুই ডোজ টিকা নেওয়ার দ্বিতীয় ও তৃতীয় সপ্তাহে আক্রান্ত হয়েছেন তারা।
গত মঙ্গলবার দুটি গবেষণার রিপোর্ট প্রকাশ পেয়েছে দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে। এ গবেষণা প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছে বিশ্বে করোনা অতিমারির সময়ে কিভাবে টিকা কাজ করছে।
একইসাথে প্রতিবেদনে এটা মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে, দুই ডোজ ভ্যাকসিন নিলেও স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। করোনা যে ধরনের সংক্রামক ও মিউটেশন ঘটায়, তাতে যেকোনো সময় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এখনও বলার সময় আসেনি যে, দুই ডোজ টিকা নিলে আপনি মাস্ক পরবেন না। আপনাকে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করতে হবে। করোনা সংক্রামক রোগ। দ্রুত ছড়ায়। একটি দেশের অধিকাংশ মানুষ টিকা পাবার আগে মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।
যুক্তরাষ্ট্রের যেসব স্বাস্থ্যকর্মীরা দুইডোজ টিকা নেওয়ার পরও করোনা পজিটিভ হয়েছেন, তাদের উপসর্গ মৃদু। যারা টিকার ডোজ সম্পন্ন করেছেন, তারা আক্রান্ত হলেও তাদের হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন হবে না।
গবেষণায় বারবার পরীক্ষা সমূহের ডাটা এটাই ইঙ্গিত করে এই সংক্রমণ অতোটা তীব্র নয়, এবং হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন নেই। কিছু লোকের কোনও লক্ষণই ছিল না, এবং কেবলমাত্র পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে বা তাদের চিকিৎসা সতর্কতার অংশ হিসাবে আবিষ্কার করা হয়েছিল।

নিউইয়র্ক টাইমস অবলম্বনে