ব্রাদার্সকে উড়িয়ে দিল আবাহনী

0
25

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
ম্যাচজুড়ে আধিপত্য করল আবাহনী লিমিটেড। সানডে-জুয়েল-বেলফোর্ট-রুবেলরা পেলেন জালের দেখা। ড্র দিয়ে প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় লেগ শুরুর ধাক্কা সামলে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে গুঁড়িয়ে দিল মারিও লেমোসের দল। খবর বিডিনিউজের।
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গতকাল মঙ্গলবার ৫-২ গোলে জিতেছে আবাহনী। দলের পাঁচ গোলদাতা সানডে চিজোবা, জুয়েল রানা, নাসিরউদ্দিন চৌধুরি, রুবেল মিয়া ও কেরভেন্স ফিলস বেলফোর্ট। ব্রাদার্সের গোল দুটি করেন আওয়ালা মাগালান। প্রথম লেগে ব্রাদার্সকে ২-০ গোলে হারানো আবাহনী ১৪ ম্যাচে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে। সমান পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে এক ম্যাচ কম খেলা শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব। কদিন আগে পুলিশ এফসির বিপক্ষে পয়েন্ট হারানো আবাহনী শুরু থেকে মেলে ধরে আক্রমণাত্মক ফুটবলের পসরা। যথারীতি ডিফেন্ডার রায়হান হাসানের ট্রেডমার্ক লম্বা থ্রো ইন ছিল ব্রাদার্সের অন্যতম বিপদের কারণ।অষ্টম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারত লিগের ছয়বারের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। সতীর্থের ক্রসে চিজোবার হেড ফেরান গোলরক্ষক জাফর সরদার। জটলার ভেতর থেকে জুয়েলের ফিরতি শট বাঁধা পায়। সপ্তদশ মিনিটে রায়হানের ক্রসে সানডের হেডও হয় লক্ষ্যভ্রষ্ট। চাপ ধরে রেখে ২২তম মিনিটে গোল তুলে নেয় আবাহনী। রায়হানের লম্বা থ্রো ইনে বেলফোর্ট হেড করার পর গোলমুখ থেকে নিখুঁত টোকায় লক্ষ্যভেদ করেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে। ৩৪তম মিনিটে চিজোবার সাইড ভলি বাইরের জাল কাঁপায়। ছয় মিনিট পর আবারও রায়হানের থ্রো ইনে সাইঘানির হেড পাসের পর নাসিরউদ্দিনও হেডে লক্ষ্যভেদ করেন। প্রথমার্ধের শেষ দিকের গোলে ম্যাচের লাগাম মুঠোয় নেয় আবাহনী। ৪৪তম মিনিটে কর্নারে বেলফোর্টের হেড জাফর ফেরালেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি। আলতো টোকায় অনায়াসে লক্ষ্যভেদ করেন দূরের পোস্টে ফাঁকায় থাকা জুয়েল।
দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ধারাবাহিকতা ধরে রাখে আবাহনী। ৪৬তম মিনিটে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে সানডের নেওয়া শট দূরের পোস্টে লেগে ফিরে।
৬১তম মিনিটে সানডের থ্রু পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে ডান পায়ের শটে ব্যবধান আরও বাড়ান বেলফোর্ট। এগিয়ে এসেও শেষ রক্ষা করতে পারেননি গোলরক্ষক জাফর।
৭৭তম মিনিটে ব্যবধান কমায় ব্রাদার্স। সতীর্থের লম্বা ক্রস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আফগানিস্তানের ডিফেন্ডার মাসিহ সাইঘানিকে কাটিয়ে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন ব্রাদার্সের আওয়ালা মাগালান। আর দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন তিনি।
প্রতিপক্ষের দুই গোলের মাঝে ৮১তম মিনিটে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে স্কোরলাইনে নাম লেখান রুবেল মিয়া। একটু আগেই জুয়েলের বদলি নেমেছিলেন এই ফরোয়ার্ড।
১৪ ম্যাচে ১১ হারের স্বাদ পাওয়া ব্রাদার্স ৫ পয়েন্ট নিয়ে অবনমন অঞ্চলে ঘুরপাক খাচ্ছে।