বিরাট-আমলাকে টপকে রেকর্ড পাক ব্যাটসম্যানের

0
58

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
সেঞ্চুরি করে দলকে জেতালেনই না, বিরাট কোহলি ও হাশিম আমলাকে টপকে নতুন রেকর্ড গড়লেন বাবব আজম। অধিনায়কের শতরানে সেঞ্চুরিয়নে শেষ বলের থ্রিলার জিতল পাকিস্তান। ৩ উইকেটে জিতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে অভিযান শুরু করল বাবর অ্যান্ড কোং। সেই সঙ্গে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ এগিয়ে গেল পাকিস্তান।
ওয়ান ডে কেরিয়ারের ১৩তম সেঞ্চুরির পথে প্রাক্তন প্রোটিয়া অধিনায়ক আমলার রেকর্ড ভাঙলেন পাক অধিনায়ক। সেই সঙ্গে দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান ডে ক্রিকেটে ১৩টি সেঞ্চুরি করার নজির গড়লেন বাবর। মাত্র ৭৬টি ইনিংসে ১৩তম ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করেন বাবর। আর আমলার ১৩টি সেঞ্চুরি এসেছিল ৮৩টি ওয়ান ডে ইনিংসে। শুধু তাই নয়, এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান কোহলির থেকে ১০টি কম ইনিংস খেলে ১৩তম সেঞ্চুরি করেন বাবর। কোহলি এবং প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি’কক ১৩টি ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করতে নিয়েছেন ৮৬টি ইনিংস।
সেঞ্চুরিয়নে টস জিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে প্রথমে ব্যাটিং’য়ে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল পাকিস্তান। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ২৭৩ রান তুলেছিল প্রোটিয়াবাহিনী। ভ্যান ডার দাসেন ১২৩ রান, কুইন্টন ডি’কক ২০ এবং ডেভিড মিলার ৫০ রান করেন। ৫৫ রানে চার উইকেট হারিয়ে শুরুতেই বেকায়দায় পড়েছিল প্রোটিয়ারা। জোড়া উইকেট তুলে নিয়ে শুরুটা দারুণ করেছিলেন পাক পেসার শাহিন আফ্রিদি। কিন্তু পঞ্চম উইকেটে ডাসেন-মিলার জুটিতে ম্যাচে ফেরে দক্ষিণ আফ্রিকা।
পঞ্চম উইকেটে ১১৬ রান যোগ করে পাকিস্তানের সামনে বড় রানের টার্গেট দিয়েছিল প্রোটিয়াবাহিনী। মিলার অর্ধ-শতরান করে আউট হলেও থামানো যায়নি ডাসেনকে। কেরিয়ারের প্রথম ওয়ান ডে শতরান পূর্ণ করেন তিনি। ১২৩ বল খেলে সেঞ্চুরিপূর্ণ করে শেষ পর্যন্ত ১৩৪ বলে ১২৩ রান করে অপরাজিত যান ডাসেন। ইনিংসে ছিল ১০টি বাউন্ডারি ও ২টি ছক্কা হাঁকান তিনি।
রান তাড়া করতে নেমে শেষ বলের থ্রিলারে জয় নিশ্চিত করে পাকিস্তান। ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭৪ রান তুলে নেয় তারা। ক্যাপ্টেন বাবর সেঞ্চুরির পাশাপাশি ইমাম-উল-হক করেন ৭০ রান। এছাড়াও মহম্মদ রিজওয়ান ৪০ ও শাদব খান ৩৩ রান করে পাকিস্তানকে জেতাতে বড় ভূমিকা নেন।