বিনিয়োগ সম্প্রসারণের আশাবাদ

58

জুনে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের সিদ্ধান্ত

দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (সিসিসিআই) এবং প্রাইমর্কস্ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (পিসিসিআই), ভøাদিভোস্তক, রুশ ফেডারেশনের মধ্যে বেসরকারি খাতের উন্নয়নে এবছর জুন মাসের মাঝামাঝি একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
১৮ মে সকালে উভয় চেম্বারের মধ্যে এ সংক্রান্ত প্রস্তুতিমূলক এক সভা জুম কনফারেন্স এর মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় চিটাগাং চেম্বারের পক্ষে সভাপতি মাহবুবুল আলম, সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন ও পরিচালক সৈয়দ মোহাম্মদ তানভীর এবং ভøাদিভোস্তক চেম্বারের পক্ষে সভাপতি বরিস স্টুপনিটস্কি, সহ-সভাপতি মিখাইল ভেসেলভ ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিভাগীয় প্রধান অ্যালেক্সি কুশনির মস্কোর বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত কামরুল আহসান, ভøাদিভোস্তকে বাংলাদেশের অনারারি কনস্যুলেট এর পক্ষে এন্টন জুবকো অংশগ্রহণ করেন। সভা সঞ্চালনা করেন মস্কোর বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্শিয়াল কাউন্সিলর মোল্লা সালেহীন সিরাজ।
চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং পরবর্তীতে দেশের অর্থনীতিতে রুশ সরকারের অবদানের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করে আন্তর্জাতিক পরিম-লে দেশের অর্থনীতির বর্তমান চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি বৈদেশিক বিনিয়োগ আকর্ষণে বর্তমান সরকার কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার কথা ভøাদিভোস্তক চেম্বার নেতৃবৃন্দকে অবহিতপূর্বক উভয়দেশের বেসরকারি উদ্যোক্তাদের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে বাণিজ্যিক প্রতিবন্ধকতা দূর করে দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণের আহ্বান জানান। বাংলাদেশের বেসরকারি খাত অত্যন্ত স্পন্দনশীল উল্লেখ করে উভয়দেশের বেসরকারি খাতের উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধিতে প্রস্তাবিত সমঝোতা স্মারক চুক্তিটি বিশেষ অবদান রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
ভøাদিভোস্তক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি বরিস স্টুপনিটস্কি বলেন- ভøাদিভোস্তক ও চট্টগ্রাম বন্দরের মধ্যে ঐতিহাসিক এবং সাদৃশ্যপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। তিনি চট্টগ্রাম বন্দর তথা চট্টগ্রামকে দেশের অর্থনীতির অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক কেন্দ্রবিন্দু উল্লেখ করে সার্ভিসিং এজেন্সির মাধ্যমে সেবা প্রদানসহ উভয় দেশ এক সাথে কাজ করার উপর গুরুত্বারোপ করেন এবং চিটাগাং চেম্বারের সাথে ভøাদিভোস্তক চেম্বারের সমঝোতা স্বাক্ষরের মাধ্যমে পারস্পরিক ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ তথা বেসরকারি খাতের উন্নয়নে নব দিগন্তের সূচনা করবে বলে মন্তব্য করেন। পাশাপাশি করোনাজনিত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে উভয় চেম্বার পারস্পরিক বাণিজ্য প্রতিনিধিদল সফর বিনিময়ের প্রস্তাব করেন। মস্কোতে নিযুক্ত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত কামরুল আহসান বলেন, ২০২০ সালের জানুয়ারিতে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে উভয় দেশের প্রধান প্রধান চেম্বারের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করার কথা জানিয়ে প্রথমেই চিটাগাং চেম্বার ও ভøাদিভোস্তক চেম্বারের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের উদ্যোগ গ্রহণ করেন বলে জানান। এ সমঝোতার মাধ্যমে উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য ত্বরান্বিত হবে এবং রাশিয়ার বাজারে বাংলাদেশী পণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধিসহ রপ্তানি ঝুড়িতে নতুন নতুন পণ্য সংযুক্ত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। চিটাগাং চেম্বার সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন উভয় মহানগর তথা দেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্প্রসারণ, সরাসরি ব্যাংকিং লেনদেন চালু, বাণিজ্য ঘাটতি নিরসন, বাণিজ্যিক পরিবেশ উন্নয়নে উভয় চেম্বার যৌথভাবে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। চিটাগাং চেম্বার পরিচালক সৈয়দ মোহাম্মদ তানভীর বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে সম্ভাবনা ও সমস্যা চিহ্নিত করার লক্ষে উভয় চেম্বার এবং দূতাবাস মিলে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন এবং সাংস্কৃতিক কর্মসূচি বিনিময়ের আহ্বান জানান। পিসিসিআই সহ-সভাপতি মিখাইল ভেসেলভ চট্টগ্রামকে অমিত সম্ভাবনাময় নগরী উল্লেখ করে এই সমঝোতা স্মারক সম্পাদনের মাধ্যমে একসাথে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিভাগীয় প্রধান অ্যালেক্সি কুশনির উভয় দেশের বেসরকারি খাতের বিকাশ ও উন্নয়নে এ সমঝোতা স্মারকটি বিশেষ অবদান রাখবে বলে মন্তব্য করেন। বিজ্ঞপ্তি