বাঁশখালীতে ৩ খুনের ঘটনায় দুই মামলা

274

গ্রেফতার ৩

পুলিশ পরিদর্শক মামুন হাসান ক্লোজড

সংবাদদাতা, বাঁশখালী :

বাঁশখালীতে ৩ খুনের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অপরদিকে দায়িত্ব অবহেলা ও কতিপয় অপরাধীদের সাথে সখ্যতা থাকার অভিযোগে রামদাশ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মামুন হাসানকে ক্লোজড করে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

বাহারছড়া ইউনিয়নের ইলশায় ২ মাদ্রাসা ছাত্র খুনের ঘটনায় ২ জনকে এবং দক্ষিণ সাধনপুরের ট্রাক চালক হত্যার ঘটনায় ১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

থানা পুলিশ জানায়, সাধনপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ সাধনপুরে গত ১২ মে সকালে অ্যাম্বুলেন্স থামিয়ে ছুরি মেরে খুন করা এবং কয়েকজন আহত হবার ঘটনায় নিহত ট্রাক চালক জহিরুল ইসলাম (৩৭) এর স্ত্রী নুর আয়েশা ডলি বাদি মামলা দায়ের করেছেন।

ওই মামলায় মো. ইলিয়াছকে প্রধান আসামি করে ২৩ জনকে এজাহার নামীয় আসামি করা হয়েছে। পুলিশ ওই মামলার এজাহার নামীয় মৃত আব্দুস ছামাদের পুত্র মো. মুবিনুল হক (৩৫) গ্রেফতার করেছে।

অপর দিকে বাহারছড়া ইউনিয়নের ইলশা গ্রামে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০টায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত দুই মাদ্রাসা ছাত্র মাওলানা মো. খালেদ বিন ওয়ালিদ (২৩) ও  মাওলানা হাফেজ ইব্রাহিম (২২) খুনের ঘটনায় এমবিএম ব্রিক ফিল্ডের মালিক দিদারম্নল আলম ঝুন্টু বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

২৪ জন এজাহার নামীয় মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে মদিনা ব্রিক ফিল্ডের মালিক নুরম্নল আবছারকে। ওই মামলায় এজাহার নামীয় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন মৃত আহম্মদ মিয়ার পুত্র মো. আজিজ আহাম্মদ (৬০) এবং মৃত ফারুক আহাম্মদের পুত্র মো রাসেল উদ্দিন (২০)।

রামদাশ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মামুন হাসানকে ক্লোজড করে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করার পর থেকে এলাকায় ভুক্তভোগী অসংখ্য মানুষের মধ্যে স্বসিত্ম ফিরে এসেছে। সাধনপুরের হত্যাকাণ্ডের খুনিদের সাথে সখ্যতার ব্যাপারে এবং এলাকার দাগি অপরাধীদের সাথে জড়িত থাকার বিষয় তদন্ত সাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থার দাবি করেছেন গ্রামবাসী।

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, ‘ এলাকার পরিবেশ শান্ত হয়েছে । দুই মামলায় এজাহার নামীয় ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। খুনিদের গ্রেফতার করতে নানা কৌশলে পুলিশের অভিযান চলছে।’