বলিউডে ফিরছেন তনুশ্রি দত্ত

0
169

সুপ্রভাত ডেস্ক :
অভিনয়ে ফেরার জন্য মার্কিন সরকারের প্রতিরক্ষা বিভাগে তথ্য-প্রযুক্তির কাজ ফিরিয়ে দিয়েছেন তনুশ্রি। রুপালি পর্দায় অনেকদিন ধরে অনুপস্থিত থাকলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভক্তদের ঠিকই সামলিয়ে রাখেন বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রি দত্ত। সেই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ইন্সটাগ্রামের বিশাল এক লেখায় জানালেন তিনি আবারও ফিরছেন বলিউডে। খবর বিডিনিউজের।
ইন্সটাগ্রামের সেই লেখার উদ্ধৃতি দিয়ে টাইমঅফইন্ডিয়া ডটকম জানায়, ‘কিছু খারাপ মানুষের বাজে কাজের কারণে তনুশ্রি বলিউডের পথ থেকে সরে গিয়েছিলেন। তবে নতুন করে ফিরে আসার চিন্তায় আছেন এখন।’
২০১০ সালে ‘অ্যাপার্টমেন্ট’ ছবির পর তাকে আর রুপালি পর্দায় দেখা যায়নি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর খবরে প্রকাশ পায়, সেখানে তিনি তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে চাকরি করছেন।
এই বিষয়ে তনুশ্রি লেখেন, ‘চাকরি নয়, আমি যুক্তরাষ্ট্রে তথ্য ও প্রযুক্তির ওপর প্রশিক্ষণ নিয়েছি। তারপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা খাতে এই সম্পর্কিত চাকরির সুযোগও আমি পেয়েছি। সেনাবাহিনীতে চাকরি মানে সাংঘাতিক নিরাপত্তার সঙ্গে নিয়ম মেনে কাজ করা। এই কাজ নিলে আমি তিন বছরের জন্য কোথাও যেতে পারবো না।’
তিনি আরও লেখেন, ‘তবে আমি একজন শিল্পী। এই সম্মানজনক চাকরির চাইতে আমার শিল্পী মনোভাবকেই মূল্য দিচ্ছি। কিছু খারাপ লোকের কারণে আমি সরে আসলেও ঠিক করেছি তাড়াহুড়া করে আমার পথ বদলাবো না। তাই বলিউডে ফিরে আসার জন্য নতুন করে ভাবছি।’
তনুশ্রি তার এই লেখায় আরও জানান, এরই মধ্যে বলিউডের বেশ কয়েকটি ছবি ও ওয়েব সিরিজে কাজ করা বিষয়ে কথা হয়েছে। তিনটি দক্ষিণি সিনেমার ব্যবস্থাপকদের সঙ্গে কথা চলছে। পাশাপাশি মুম্বাইয়ের ১২টি ‘কাস্টিং অফিস’য়ের সঙ্গেও চলছে আলাপ আলোচনা। এই তথ্যগুলো জানিয়ে তনুশ্রি পোস্টে উল্লেখ করেন, ‘তাই আমি ভারতে ফিরে এসে বেশ কয়েকদিন থাকবো। মুম্বাই ও বলিউডে আবারও কাজ করবো।’
ইন্সটাগ্রামের এই লেখার সঙ্গে তার কয়েকটি নতুন রূপের ছবিও পোস্ট করেন। আর লেখেন, ‘নিজেকে আমি প্রস্তুত করছি। এরই মধ্যে ১৫ কেজি ওজন ঝরিয়েছি।’
২০০৮ সালের ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি গানে চিত্রায়ণের সময় নানা পাটেকার তার গায়ে বাজে ভাবে হাত দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেন তনুশ্রি।
তবে এই অভিযোগ তিনি করেছিলেন ২০১৮ সালে। ঘটনার সঠিক বর্ণনা না দিয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘যে কারণে আমি কাজ করতে অস্বস্তি বোধ করেছি। আমার কাছে এটা কুরুচিপূর্ণ এবং অশ্লীল পদক্ষেপ মনে হয়েছে।’