ফটিকছড়িতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ, অভিযুক্ত শিক্ষক আটক

0
117

নিজস্ব প্রতিনিধি, ফটিকছড়ি
ফটিকছড়িতে মোহাম্মদ রবিউল আলম (৮) নামে এক মাদরাসার ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক জাহাঙ্গীরকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।
সোমবার উপজেলার পাইন্দং ইউপির হযরত ইমাম এ-আজম আবু হানিফা (রা.) গাউসিয়া সুন্নিয়া হেফজ ও এতিমখানায় এ ঘটনা ঘটে।
মঙ্গলবার আহত ছাত্রের বাবা আব্দুল হাকিম বাদি হয়ে অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রথমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরে ফটিকছড়ি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অভিযুক্ত শিক্ষক মাওলানা জাহাঙ্গীরকে উক্ত মাদ্রাসা থেকে আটক করে পুলিশ। মাদ্রাসার ছাত্র মোহাম্মদ রবিউল আলম উপজেলার দাঁতমারা ইউপির হাসনাবাদ গ্রামের মোহাম্মদ আব্দুল হাকিমের পুত্র।
রবিউলের বাবা মো. আব্দুল হাকিম জানান, সোমবার বাচ্চাকে মাদ্রাসায় দেখতে গেলে বাচ্চার শারীরিক অবস্থা দেখে বিস্মিত হই। বাচ্চাকে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার পরিবর্তে মানসিক ও শারীরিকভাবে অনেক নির্যাতন করা হয়। উক্ত মাদ্রাসার হুজুর জাহাঙ্গীর আলম বাচ্চাকে মারধর করে। যার ফলে বাচ্চার শারীরিক অবস্থা খুবই সংকটপন্ন। কিন্তু মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে উক্ত বিষয়ে অভিযোগ করার পরেও তারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।
ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল আলম জানান, আহত মাদ্রাসা ছাত্র রবিউলের বাবা আব্দুল হাকিম বাদি হয়ে থানায় লিখিত করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযুক্ত শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমকে মাদ্রাসা থেকে আটক করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সায়েদুল আরেফিন জানান, ‘অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ফটিকছড়ি থানা পুলিশ সাথে সাথে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে। মামলা কার্যক্রম চলমান।’