পেঁয়াজের দামে উর্ধ্বগতি

0
208

আজ থেকে আবার মাঠে নামছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক :

এক দিনের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের মূল্য কেজি প্রতি একলাফে ১০ টাকা বেড়ে গেছে। গতকাল দুপুর পর্যন্ত খাতুনগঞ্জে ভারতীয় পেঁয়াজ ৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। দুপুরের পর হঠাৎ দাম চড়ে যায় কেজি প্রতি ৪৫ টাকায়।
খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজের আড়তদাররা জানিয়েছেন, দক্ষিণ ভারতে বন্যায় পেঁয়াজের ক্ষেত নষ্ট হয়ে যাওয়াতে সেখানেও দাম বেড়ে গেছে। ওখানে এখন পেঁয়াজের সরবরাহ সংকট দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় ভারত আবার বাংলাদেশে পেঁয়াজের রপ্তানি বন্ধ করে দিতে পারে বলে আশংকা তাদের।
ভারতে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়াতে বাংলাদেশে এর প্রভাব পড়ছে বলে জানিয়েছেন খাতুনগঞ্জের আড়তদাররা।
খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজের কমিশন এজেন্ট মেসার্স এস এন ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী আলী হোসেন খোকন সুপ্রভাতকে বলেন, দক্ষিণ ভারতে বন্যায় পেঁয়াজের ক্ষেত ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। যে কারণে সেখানেও পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। এখন ওখানে নাকি পেঁয়াজের সংকট দেখা দিয়েছে। এছাড়া ভারতে এখন নাসিক জাতের পেঁয়াজ উৎপাদন হচ্ছে না। এ অবস্থায় ভারত আবার বাংলাদেশে পেঁয়াজের রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে।

খাতুনগঞ্জের আড়তদাররা বলছেন, এখন মিয়ানমার থেকেও বাংলাদেশে পেঁয়াজ আমদানি হচ্ছে না। এ অবস্থায় ভারত থেকে আমদানি বন্ধ হয়ে গেলে পেঁয়াজের দাম আবার অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাবে।
গতকাল দুপুরে খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি ১০ টাকা বেড়ে যাওয়ার খবরে সাথে সাথে খুচরা বাজারে এর প্রভাব পড়ে। নগরীর খুচরা বাজারে গতকাল সন্ধ্যা থেকে পেঁয়াজের কেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকা বৃদ্ধি পায়।
হঠাৎ করে বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি আরো ১০ টাকা বেড়ে যাওয়াতে নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে মঙ্গলবার থেকে আবার বাজারে নামছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।
অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ড. বদিউল আলম সুপ্রভাতকে বলেন, পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে মঙ্গলবার থেকে আবার ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বাড়তি দামে যারা পেঁয়াজ বিক্রি করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
প্রসঙ্গত, সপ্তাহ খানেক আগে পেঁয়াজের দাম ২৫ থেকে একলাফে ৫০ টাকা বেড়ে গেলে রোববার খাতুনগঞ্জের পাইকারি আড়তে হানা দেয় জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে পেঁয়াজের ১০টি আড়তকে ৭২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এর জের ধরে পরদিন পেঁয়াজের আড়তে ধর্মঘটের ডাক দেন ব্যবসায়ীরা। রাস্তায় নেমে বিক্ষোভও করেন তারা। প্রশাসনকে হুংকার দিয়ে পর দিন থেকে আগের মূল্যে আবার বেচাকেনা শুরু করেন তারা।
আড়তদারদের ‘হুংকারে’ গত এক সপ্তাহ ধরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান বন্ধ রেখেছে জেলা প্রশাসন।