দশকের সেরা ওয়ানডে দল বেছে চমকে দিলেন ইয়ান বিশপ

0
247

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
দশকের সেরা এক দিনের দল বেছে নিলেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ইয়ান বিশপ। তার দলে জায়গা পেয়েছেন তিন জন ভারতীয়। দলের অধিনায়কও এক ভারতীয়। তবে কোনও ভারতীয় বোলারকে নিজের গড়া দলে রাখেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন পেসার। সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হল, বিশপের দলে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের কোনও ক্রিকেটার নেই। পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোনও ক্রিকেটারেরও জায়গা হয়নি দলে।
ইয়ান বিশপের দলের হয়ে ওপেন করবেন রোহিত শর্মা। ‘হিটম্যান’ এই ফরম্যাটে তিন বার ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন। ইংল্যান্ডে হওয়া গত বিশ্বকাপে পাঁচ সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। যা রেকর্ড। বড় ইনিংস খেলার ক্ষমতা রয়েছে তার।
রোহিতের সঙ্গে থাকবেন ডেভিড ওয়ার্নার। ডানহাতি-বাঁহাতি কম্বিনেশন থাকছে ওপেনিংয়ে। অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার বিধ্বংসী মেজাজে শুরু করেন। দলকে টানার ক্ষমতা রয়েছে তার। গত বিশ্বকাপে রোহিতের মতো ওয়ার্নারও ছিলেন ধারাবাহিক।
তিন নম্বরে থাকছেন বিরাট কোহালি। তিনি হলেন চেজমাস্টার। তবে শুধু রান তাড়া করাই নয়, প্রথমে ব্যাট করে দলকে বড় রানের নিরাপত্তায় পৌঁছে দিতেও পারেন। এই ফরম্যাটে ৪৩ সেঞ্চুরি করে ফেলেছেন তিনি। গড় ৫৯.৩৩।
চারে দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি’ভিলিয়ার্স। তাকে ৩৬০ ডিগ্রি ব্যাটসম্যান বলা হয়। মাঠের সব প্রান্তে শট খেলার অবিশ্বাস্য দক্ষতা রয়েছে তার। ৫৩.৫০ গড়ে ৯৫৭৭ রান করেছেন তিনি এক দিনের ক্রিকেটে। শতরানের সংখ্যা ২৫।
পাঁচে রস টেলর। কিউয়ি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ৪৮.৪৪ গড়ে করেছেন ৮৫৭৪ রান। রয়েছে ২১ শতরান। চাপের মধ্যে দলকে টেনে নিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রয়েছে তার। বিশাল অভিজ্ঞতাও বিপক্ষ বোলারাদের চাপে ফেলবে।
বিশপের দলের অলরাউন্ডার হলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের এই বাঁহাতি ব্যাটে-বলে দলের সম্পদ। ব্যাটে ৬৩২৩ রান করার পাশাপাশি ২৬০ উইকেটও নিয়েছেন তিনি। গত বিশ্বকাপে তিন নম্বরে নেমে তিনি ভরসা দিয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটিংকে। সঙ্গে দশ ওভারের নিখুঁত বোলিংও ছিল।
দলের অধিনায়ক হলেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। উইকেটকিপার ও ব্যাটসম্যান মিলিয়ে দলের থ্রি-ডি ক্রিকেটার তিনিই। বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক হওয়ার পাশাপাশি বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফিনিশারও তিনি। তাছাড়া উইকেটের পিছন থেকে বোলারদের নির্দেশ দেওয়াতে কাজে আসবে তার অগাধ অভিজ্ঞতা।
এ বার বোলিং বিভাগ। মিচেল স্টার্ক আসবেন নতুন বল হাতে। অস্ট্রেলিয়ার বাঁ-হাতি পেসার ২২.২২ গড়ে নিয়েছেন ১৭৮ উইকেট। স্ট্রাইক রেট ২৬.১। পাঁচ উইকেট নিয়েছেন সাত বার। এর সঙ্গে লোয়ার অর্ডারে বড় শট নিতেও পারেন।
নতুন বলে দৌড় শুরু করবেন ডেল স্টেনও। দক্ষিণ আফ্রিকার ডানহাতি পেসার গতির সঙ্গে সুইং মিশিয়ে ব্যাটসম্যানদের রাখেন ধাঁধায়। এই সময়ের সেরা পেসারদের তালিকায় উপরের দিকেই থাকেন তিনি। ২৫.৯৫ গড়ে তিনি নিয়েছেন ১৯৬ উইকেট।
লাসিথ মালিঙ্গা হলেন আর এক জন পেসার। যাকে স্লগ ওভারে বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে ব্যবহার করতে হবে। এই ফরম্যাটে ৩৩৮ উইকেট রয়েছে তার। স্লিং অ্যাকশনের মালিঙ্গাকে মারা কঠিন।
দলের বিশেষজ্ঞ স্পিনার হলেন রশিদ খান। রিস্টস্পিনার তিনি। আফগানিস্তানের এই লেগস্পিনার ব্যাটসম্যানকে বিভ্রান্ত করতে পারেন গুগলি-ফ্লাইটের কারিকুরিতে। বয়স মাত্র ২১। ১৮.৫৪ গড়ে এর মধ্যেই নিয়ে ফেলেছেন ১৩৩ উইকেট।
খবর : আনন্দবাজার’র।