তরুণদের সৃজনশীল কাজে যুক্ত রাখতে হবে

0
118

রাঙ্গুনিয়ায় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী
‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ও তার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার খেলাধুলাবান্ধব। তিনি নিজেও একজন খেলাধুলাবান্ধব প্রধানমন্ত্রী। তার হাত ধরেই বাংলাদেশ ক্রিকেটে টেস্ট মর্যাদা পেয়েছে।’
শুক্রবার সন্ধ্যায় রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পদুয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম অ্যাডভোকেট নুরুচ্ছফা তালুকদার স্মৃতি গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, মেয়েরা ভারতের মেয়েদের হারিয়ে দিয়ে এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। যুব ক্রিকেট টিম বিশ্বকাপে জয় লাভ করে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এসব সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ সরকার খেলাধুলাবান্ধব সরকার বিধায়।
বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা রাঙ্গুনিয়া উপজেলা শাখার ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় সভাপতিত্ব করেন ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম কবির তালুকদার। খেলার উদ্বোধন করেন বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার শিশু সদস্য আদেল সাদিক মাহমুদ। সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার পুনঃনির্বাচিত মেয়র মো. শাহজাহান সিকদার, বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান, সুখবিলাস ফিসারিজ অ্যান্ড প্লান্টেশনের চেয়ারম্যান এরশাদ মাহমুদ, ইডেন ইংলিশ স্কুলের চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ, চান্দগাঁও শান্তিময় বিহারের অধ্যক্ষ বোধিশ্রী ভিক্ষু, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সভাপতি সাঈদ মোহাম্মদ রনি।
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তরুণদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশের জন্য খেলাধুলার বিকল্প নেই। খেলাধুলার আয়োজনের মাধ্যমে তাদের সৃজনশীল কাজকর্মে যুক্ত রাখতে হবে। খেলাধুলার অনুপস্থিতির কারণে এখন আমাদের তরুণরা অনেক ক্ষেত্রে বিপথগামী হচ্ছে।
তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অতিরিক্ত আসক্তির বিরূপ প্রভাবও পড়ছে আমাদের কিশোর তরুণদের উপর। সেজন্য এভাবে নানা ধরনের টুর্নামেন্ট আয়োজনের মাধ্যমে খেলাধুলা চালু রাখা অত্যন্ত জরুরি।
রাঙ্গুনিয়ার খেলাধুলা সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, রাঙ্গুনিয়া খেলাধুলায় অত্যন্ত সমৃদ্ধ। জাতীয় ফুটবল দলে আমাদের ২/৩ জন খেলোয়াড় প্রতিবছরই থাকে। এখনও রাঙ্গুনিয়ার দুজন খেলোয়াড় জাতিয় দলে আছে। খেলোয়াড় সৃষ্টির জন্য এ ধরনের ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন প্রতিবছর করার জন্য আয়োজকদের উৎসাহ দেন ড. হাছান মাহমুদ।
রাঙ্গুনিয়ার উন্নয়ন সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়ার কালিন্দীরানী সড়কের অনেক জায়গায় ভেঙে গেছে, তবে সড়কটির কাজ আগামী এক সপ্তাহ পরেই শুরু হবে। এই রাস্তাটি আরও বড় করে ১৮ ফুট প্রস্থ করার জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এই সড়ক ও মরিয়মনগর ডিসি সড়কের প্রশস্তিকরণের জন্য প্রকল্প নেওয়া হয়েছে তা কাজ শুরু হবে।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা ইদ্রিছ আজগর, নজরুল ইসলাম তালুকদার, আবু জাফর চেয়ারম্যান, আবদুল কাইয়ুম তালুকদার, নুর কুতুবুল আলম, মুজিবুল হক হিরু, নাসির উদ্দিন সেলিম, জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার বাদশা, আবদুর রউফ মাস্টার, আরিফুল ইসলাম চৌধুরী, আবু তাহের, কাউছার নূর লিটন, জাহেদুল আলম চৌধুরী আইয়ুব, মোহাম্মদ সেলিম, বদিউজ্জামান বদি প্রমুখ।
ফাইনাল খেলায় নাপিত পুকুরিয়া একতা’৭১ দলকে ১-০ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়ন হয়েছে খুরুশিয়া জুনিয়ার একতা সংঘ। পরে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বিজয়ী এবং রানার্স আপ দলের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করেন। বিজ্ঞপ্তি