জাহাজ নির্মাণ শিল্প : সুদিন ফেরাতে নীতিমালা হচ্ছে

0
152

জাহাজ নির্মাণ বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী এবং পুরনো। পঞ্চদশ থেকে সপ্তদশ শতকে সমুদ্রগামী জাহাজ নির্মাণে অগ্রসর ছিলো বাংলাদেশ এবং চট্টগ্রাম ছিলো অন্যতম কেন্দ্র। তবে আধুনিক জাহাজ রপ্তানির কার্যক্রম শুরু হয় ২০০৮ সাল থেকে। বিদেশে জাহাজ রপ্তানির ক্রয়াদেশ পেয়ে আমাদের দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্প গতি পেতে শুরু করে। ২০০৮ সালের মন্দা আমাদের জাহাজ নির্মাণ শিল্পকে আঘাত করলেও এরপর বেশ কয়েকটি দেশে জাহাজ রপ্তানির মাধ্যমে এই শিল্প ঘুরে দাঁড়ায়। সম্প্রতি কোভিড-১৯ এর প্রচ- অভিঘাতের কারণে এই সম্ভাবনাময় শিল্পখাতটি বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছে। জাহাজ রপ্তানির ৭০ শতাংশ হয় ইউরোপের দেশগুলিতে যেখানে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এর কারণে সংকট আরো বেড়েছে।
পত্রিকান্তরে প্রকাশ, দেশে অনেকগুলি জাহাজ নির্মাণ প্রতিষ্ঠান থাকলেও রপ্তানিমুখি প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১০টি। জাহাজ নির্মাণ শিল্পের সম্ভাবনা বিবেচনায় বর্তমানে ব্যর্থতা কিছুটা থাকলেও এ খাতে উন্নতির যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে বলে নীতিনির্ধারকরা মনে করেন। বেশ কিছু রপ্তানি করায় জাহাজ নির্মাণ খাতের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে সরকারিভাবে। এছাড়া সমুদ্র অর্থনীতি ও স্থানীয় নৌ-পরিবহন খাতে চাহিদা পূরণে ‘জাহাজ নির্মাণ শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা ২০২০’-এর খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে মর্মে পত্রিকান্তরে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে।
প্রস্তাবিত নীতিমালায় এই শিল্পের উন্নয়নে ৫ হাজার কোটি টাকার বিশেষ তহবিল, ৪% সুদে ২৫ বছরে ঋণ পরিশোধের সুবিধা, ১০ বছরের কর অবকাশ সুবিধা প্রভৃতি বিষয় সন্নিবেশ করা হয়েছে। খসড়া নীতিমালায় এইখাতে বছরে ৪ থেকে ৫ বিলিয়ন ডলার আয় হবে বলে প্রত্যাশা করা হয়েছে। এই শিল্পে বর্তমানের ৩০ হাজারের স্থলে ১ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। নীতিমালাটি জাহাজ নির্মাণ শিল্পের সম্ভাবনা বিকাশে ভূমিকা পালন করবে বলে সংবাদ মাধ্যমে মন্তব্য করেছেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সালাহউদ্দিন মাহমুদ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই শিল্পের সম্ভাবনা বিকাশে নীতিমালার মাধ্যমে পৃষ্ঠপোষতা জরুরি তেমনি বাণিজ্যিক পারদর্শিতা ও অর্থায়নের যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের এই সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। ব্যবসায়িক অদূরদর্শিতা ও ঋণ পরিশোধে ব্যর্থতার কারণে মন্দ ঋণও বেড়েছে। ব্যবস্থাপনায় উন্নতি এবং আর্থিক ও বাণিজ্যিক দিকগুলোয় দক্ষতা অর্জনও জরুরি। জাহাজ নির্মাণ শিল্প কেবল শ্রমঘন শিল্প নয়, উচ্চ প্রযুক্তির ভারী শিল্পখাত। কেবল পণ্যবাহী জাহাজ নয়, যাত্রীবাহী, মাছ ধরার জাহাজসহ বহুমুখি উপযোগিতার জাহাজ তৈরি হচ্ছে দেশে। আমরা মনে করি, এই শিল্পের বিকাশে সরকারি নীতিমালা প্রণয়ন একটি যুগোপযোগী পদক্ষেপ। দেশের জাহাজ শিল্পের পরিসর বাড়ছে। সমুদ্র অর্থনীতির গুরুত্ব পাওয়া, অভ্যন্তরীণ ক্রমবর্ধমান চাহিদার কারণে এই শিল্পের বিকাশের সম্ভাবনা এখন অনেক বেশি।