চলে গেলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্তঃপ্রাণ কে জেড ইসলাম

0
96

সুপ্রভাত ডেস্ক <

১৯৮৩ সালের ৩০ জানুয়ারি থেকে ১৯৮৭ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিসিবির সভাপতি পদে ছিলেন কে জেড ইসলাম। প্রয়াত এই সংগঠক ছিলেন বিসিবির চতুর্থ সভাপতি।

চলে গেলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্তঃপ্রাণ কামাল জিয়াউল ইসলাম (কে জেড ইসলাম)। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সাবেক সভাপতি, নির্মাণ স্কুল ক্রিকেটের প্রবর্তক ও নির্মাণ ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান কে জেড ইসলাম সোমবার বিকেল ৩টা ৫৫ মিনিটে নিজ বাসভবনে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর।

কে জেড ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এক শোকবার্তায় নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘তিনি ছিলেন ক্রিকেটের একজন অগ্রদূত। বাংলাদেশের ক্রিকেট তার কাছে চির ঋণী হয়ে থাকবে।’

কে জেড ইসলামের জানাজা আজ রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে গুলশানের আজাদ মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে। সাবেক সভাপতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার পতাকা অর্ধনমিত রাখবে বিসিবি।

পেশায় চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট ছিলেন কে জেড ইসলাম। গুণী এই ক্রীড়া সংগঠক ১৯৭৮ সালে আজাদ বয়েজ ক্লাবের সভাপতির দায়িত্ব পান। ১৯৮১-৮২ মৌসুমে বাংলাদেশ ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

বিসিবির সভাপতি হিসেবে তিনি পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৮৩ সালের ৩০ জানুয়ারি থেকে ১৯৮৭ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিসিবির সভাপতি পদে ছিলেন কে জেড ইসলাম। প্রয়াত এই সংগঠক ছিলেন বিসিবির চতুর্থ সভাপতি।

কে জেড ইসলাম বিসিবির সভাপতি থাকাকালে বাংলাদেশ প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ (১৯৮৬ সালের এশিয়া কাপে) খেলে। প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের সূচনাও হয় তার হাত ধরে। ক্রীড়াক্ষেত্রে অবদানের জন্য ২০০১ সালে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পান তিনি।

বাংলাদেশের ক্রিকেটে কে জেড ইসলামের সবচেয়ে বড় উদ্যোগ স্কুল ক্রিকেট। তিনিই বাংলাদেশে শুরু করেন স্কুল ক্রিকেট। নিজের প্রতিষ্ঠান ‘নির্মাণ’- এর পৃষ্ঠপোষকতায় স্কুল ক্রিকেট প্রবর্তন করে তা সারা দেশে ছড়িয়ে দেন তিনি। আমিনুল ইসলাম বুলবুল, খালেদ মাহমুদ সুজনসহ একসময় দেশের প্রায় সব শীর্ষ ক্রিকেটারের প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে হাতেখড়ি হয় নির্মাণ স্কুল ক্রিকেটেই।