ক্যাপ্টেন হিসেব ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড ছুঁলেন রুট

0
90

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
চিপকে ভারতীয় বোলারদের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দিনেও রুট আধিপত্য অব্যাহত। শুক্রবার টেস্টের প্রথম দিনই কেরিয়ারের শততম টেস্টে সেঞ্চুরি করে নজির গড়েছিলেন ইংল্যান্ড ক্যাপ্টেন। শনিবার দ্বিতীয় দিনে ক্যাপ্টেন হিসেবে টানা তিনটি টেস্টে দেড়শো রানের গ-ি টপকে স্যর ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যানকে ছুঁলেন জো রুট।
উপমহাদেশের পিচে স্পিনারের বিরুদ্ধে রুটের মাস্টারক্লাস ব্যাটিং ইংল্যান্ডকে সাফল্য এনে দেয়। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের দুই টেস্টের সিরিজ জয়ে বড় অবাদন ছিল ক্যাপ্টেন রুটের। লঙ্কার বিরুদ্ধে দু’টি টেস্টে ২২৮ এবং ১৮৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। আর চিপকে ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টেই দেড়শো রানের গ-ি টপকে নজির গড়েন রুট।
প্রথম দিন ভারতীয় বোলারদের ক্লাবস্তরে নামিয়ে এনে চিপকে প্রথম টেস্টের প্রথমদিনই শতরান হাঁকিয়েছিলেন রুট। সেই সঙ্গে তৃতীয় ইংরেজ ব্যাটসম্যান হিসেবে শততম টেস্টে সেঞ্চুরি করে ইংরেজ অধিনায়ক কলিন কাউড্রে, অ্যালেক্স স্টুয়ার্টের সঙ্গে একাসনে বসে পড়েন তিনি। আর রুট হলেন বিশ্বের নবম ব্যাটসম্যান, যিনি শততম টেস্টে শতরানের বিরল কৃতিত্ব অর্জন করলেন।
ক্যাপ্টেন হিসেবে কিংবদন্তি ডনের পরেই এই কৃতিত্ব রুটের। তবে বিশ্বের সাত নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে এলিট ক্লাবে নাম লেখান এই ইংরেজ ব্যাটসম্যান। ব্র্যাডম্যান ছাড়াও এই কৃতিত্ব রয়েছে নিউজিল্যান্ডের টম লাথাম, শ্রীলঙ্কার কুমার সঙ্গাকারা, পাকিস্তানের মুদাসর নজর এবং জাহির আব্বাস এবং ইংল্যান্ডের ওয়েলি হ্যামন্ড। তবে টানা চারটি টেস্টে দেড়শো রানের বেশি স্কোর করার বিরল নজির রয়েছে কিংবদন্তি লঙ্কান উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান সঙ্গাকারার।
তবে রুট হলেন দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান, যিনি বিদেশের মাটিতে এই রেকর্ড গড়লেন। তার আগে এই রেকর্ড করেন হ্যামন্ড। একই সঙ্গে পাকিস্তানের দুই কিংবদন্তি আব্বাস ও মুদাসরের মতো রুটও তিন টেস্টেই প্রথম ইনিংসে এই স্কোর করেন। শুক্রবার টেস্টের প্রথম দিন তার শততম টেস্টে সেঞ্চুরি করে অপরাজিত ছিলেন রুট। দিনের শেষে ১২৮ রানে অপরাজিত ছিলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক। এদিন লাঞ্চে ১৫৬ রানে অপরাজিত থেকে ব্র্যাডম্যানকে ছুঁলেন।
দ্বিতীয়দিন প্রথম সেশনে সাফল্যহীন ছিলেন ভারতীয় বোলাররা। মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে ইংল্যান্ডের রান ছিল ৩ উইকেটে ৩৫৫। রুট দেড়শো রানের গন্ডি পূর্ণ করার অনতিপরেই অর্ধ-শতরান পূর্ণ করেন বেন স্টোকস। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির ঠিক আগেই ৩৫০ রানের গন্ডি পেরিয়ে যায় ইংল্যান্ড। তবে লাঞ্চের পর স্টোকসের উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। ৮২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে নাদিমের বলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ইংরেজ অল-রাউন্ডার। তবে তার আগে চতুর্থ উইকেটে স্টোকসের সঙ্গে ১০০ রানের পার্টনারশিপ গড়েন রুট।