করোনাভাইরাস : দেশে আরও ২০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৪৪১

0
158
3D illustration of Coronavirus, virus which causes SARS and MERS, Middle East Respiratory Syndrome

সুপ্রভাত ডেস্ক »

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে আরও ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে, আর নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৪৪১ জন।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এই সবশেষ তথ্য জানানো হয়। খবর বিডিনিউজের।

সেখানে বলা হয়, সকাল ৮টা পর্যন্ত শনাক্ত ১ হাজার ৪৪১ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৭৪ হাজার ৫৯২ জন হল।

আর গত এক দিনে মারা যাওয়া ২০ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ৪৬০ জনে দাঁড়াল।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৬৮৫ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। তাতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ৮৮ হাজার ৩১৬ জন হয়েছে।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত ৮ মার্চ, তা সাড়ে তিন লাখ পেরিয়ে যায় ২১ সেপ্টেম্বর। এর মধ্যে গত ২ জুলাই ৪ হাজার ১৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ শনাক্ত।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২৫ আগস্ট সেই সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে ৩০ জুন এক দিনেই ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ মৃত্যু।

বিশ্বে এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ইতোমধ্যে ৩ কোটি ৬১ লাখ পেরিয়ে গেছে; মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১০ লাখ ৫৬ হাজারের ঘরে।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় বিশ্বে শনাক্তের দিক থেকে ষষ্ঠদশ স্থানে আছে বাংলাদেশ, আর মৃতের সংখ্যায় রয়েছে ২৯তম অবস্থানে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১০৯টি ল্যাবে ১২ হাজার ৬০৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২০ লাখ ৩৯ হাজার ৪১৩টি নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৪৩ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৩৭ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৬ দশমিক ৯৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

গত এক দিনে যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ১৩ জন, নারী ৭ জন। তাদের মধ্যে ১৯ জন হাসপাতালে ও ১ জন বাড়িতে মারা গেছেন।

মৃতদের মধ্যে ১১ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, ৫ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৩ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে এবং ১ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের কম ছিল।

১১ জন ঢাকা বিভাগের, ৪ জন চট্টগ্রাম বিভাগের,  ২ জন করে মোট ৪ জন রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ও ১ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৫ হাজার ৪৬০ জনের মধ্যে ৪ হাজার ২১৩ জনই পুরুষ এবং ১ হাজার ২৪৭ জন নারী।

তাদের মধ্যে ২ হাজার ৮০০ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ১ হাজার ৪৬৪ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৬৯৬ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৩০৫ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১২৪ জনের ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, ৪৫ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং ২৬ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের কম।

এর মধ্যে ২ হাজার ৭৫৯ জন ঢাকা বিভাগের, ১ হাজার ১০৬ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৩৫৯ জন রাজশাহী বিভাগের, ৪৪৫ জন খুলনা বিভাগের, ১৯৩ জন বরিশাল বিভাগের, ২৩৫ জন সিলেট বিভাগের, ২৪৯ জন রংপুর বিভাগের এবং ১১৪ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।