‘আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো সমাজকে আলোর পথ দেখাচ্ছে’

158

উচ্চারক আবৃত্তি কুঞ্জের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

আবৃত্তি ও মননচর্চার সংগঠন উচ্চারক আবৃত্তি কুঞ্জের ১৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন, আবৃত্তিশিল্পী ও সংগঠনগুলো কেবলমাত্র শিল্পের চর্চা করে না, তারা সামাজিক ও রাজনৈতিক দায়বদ্ধতা কাঁধে নিয়ে সমাজ ও রাষ্ট্রের কূপম-ুকতা দূরীভূত করার কাজও করে। শিল্পী ও সংস্কৃতিকর্মীদের প্রতি রাষ্ট্রের পৃষ্টপোষকতা বাড়লে সমাজে আলোকিত মানুষ বাড়বে। নগরীর মৌলানা মোহাম্মদ আলী রোডের লেটেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ মিলনায়তনে ‘উনিশে উচ্চারক’ শীর্ষক এই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়।
উচ্চারকের সভাপতি ও সাংবাদিক ফারুক তাহেরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী সুজিত রায়, চবি অধ্যাপক কবি হোসাইন কবির, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও সংগঠক মাছুম আহমেদ, সাংবাদিক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক নাট্যজন সাইফুল আলম বাবু, কবি আশীষ সেন, চবি শিক্ষক সুবীর মহাজন, সঙ্গীতশিল্পী সাইফুদ্দিন মাহমুদ খান ও আলাউদ্দিন তাহের, উচ্চারকের শুভানুধ্যায়ী পরিষদ সদস্য মিজানুর রহমান, সজল চৌধুরী, খনরঞ্জন রায়, সাইদুল ইসলাম, নন্দিতা মাহমুদ কাকলি, আবৃত্তিশিল্পী প্রণব চৌধুরী, মো. মুজাহিদুল ইসলাম, সুপ্রিয়া চৌধুরী, বর্ষা চৌধুরী, অনন্যা দাশ, উচ্চারকের সহ-সভাপতি এ এস এম এরফান, সাধারণ সম্পাদক মৌসুমী চক্রবর্তী, নির্বাহী সদস্য চারুশিল্পী সাজ্জাদ তপু, শাহ হোসাইন, শামীমা ইয়াসমিন, জামশেদ হোসাইন, মন্দিরা বিশ্বাস, পুণম দত্ত, দিপা দাশ মিতু, ফারহীন মাহমুদ খান, রোখসানা আফরিন, পুস্পিতা দাশ, সাঈদ ফারহানা, মো. হামিদ উদ্দিন, নাজিফা তাজনুর, তমা হায়দার প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ঘুনে ধরা সমাজকে কিছুটা হলেও আলোর পথ দেখাচ্ছে আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো। অনুষ্ঠানে জন্মদিনের কেক কাটেন আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ও উচ্চারকের সদস্যরা। সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী সাইফুদ্দিন মাহমুদ খান ও আলাউদ্দিন তাহের। বিজ্ঞপ্তি