আবুল বাশারের সংগ্রামী জীবন থেকে শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান

0
196

ওয়ার্কার্স পার্টির সভা

‘স্বাধীন বাংলাদেশে রাষ্ট্রায়ত্ব খাতে শ্রমিকদের মজুরি ও অধিকার সুরক্ষিত ছিল কিন্তু নয়া উদারতাবাদী নীতি-নির্ধারকরা রাষ্ট্রীয়খাতের অবসানে সরকারগুলোকে বাধ্য করায় শ্রমিকদের আর রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি থাকে নাই। প্রয়াত শ্রমিকনেতা আবুল বাশারের নীতি অনুসরণ করে বিরাষ্ট্রীয়করণ বন্ধের আন্দোলন বেগবান করতে হবে।’

শনিবার বিকাল ৪ টায় নগরীর দোস্ত বিল্ডিংস্থ ওয়ার্কার্স পার্টি কার্যালয়ে কমরেড আবুল বাশারের ১০ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম জেলা কমিটি যৌথভাবে আয়োজিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন দলের চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শরীফ চৌহান। জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরীর সঞ্চালনায় স্মরণসভায় বক্তব্য রাখেন, পাট-সুতা ও বস্ত্রকল সংগ্রাম পরিষদের চট্টগ্রামের আহ্বায়ক মছিউদ্দৌলা, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্য নাসির উদ্দীন মাহমুদ, মনসুর মাসুদ, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম জেলা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জসীম উদ্দীন, জাতীয় গার্মেন্টস ফেডারেশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি ফয়েজ আহম্মদ, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা কমিটির সদস্য মোখতার আহম্মদ, আমিন পাট কল ওয়ার্কার্স ইউনিয়ন এর সাধারণ সম্পাদক সামশুল আলম, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র চট্টগ্রাম জেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক দিলিপ কুমার নাথ, ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা কমিটির সদস্য সুপায়ন বড়ুয়া, হাফিজ জুট মিল ওয়ার্কার্স ইউনিয়ন এর সভাপতি নুর মোহাম্মদ মিলন, যুব মৈত্রী চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক খোকন মিয়া, ছাত্র মৈত্রী নগর কমিটির সহ-সভাপতি সাইফুদ্দিন সুজন, ছাত্র মৈত্রী জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলা উদ্দিন, গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন এর সাধারণ সম্পাদক কুলসুমা বেগম।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে শরীফ চৌহান বলেন, মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন না হওয়া, ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধি না পাওয়া এবং কভিড-১৯ এর আর্থিক ও মানসিক বিপর্যয়কালে রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধ করে দেয়া, অন্যান্য শ্রমিকদের কোনরূপ প্রণোদনা না দেয়া সর্বোপরি ইপিজেডসহ সকল পোশাক ও অন্যন্য শিল্পের শ্রমিকদের ট্রেড ইউনিয়ন করার অধিকার না দেওয়ায় দেশে আজ এক করুন পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

এ অবস্থায় সকল খাতের শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে এসে শ্রমিকদের দাবি-দাওয়া বাস্তবায়নে জোরদার ভূমিকা পালন করা সকল গণতান্ত্রিক শক্তির দায়িত্ব ও কর্তব্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, কমরেড আবুল বাশার তার জীবনে এ ধরনের ঐক্যবদ্ধ শ্রমিক আন্দোলনের শিক্ষা ও উদাহরণ রেখে গেছেন। আবুল বাশার এর সংগ্রামী জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে সকলকে শ্রমিক শ্রেণির অধিকার আদায়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তি