আবর্জনা ফেলে পুকুর ভরাট করলেই ব্যবস্থা

0
190

পাঠানটুলী ওয়ার্ডে সুজন :

সিটি করপোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অভিযোগ পান, পাঠানটুলী ওয়ার্ডের নজীর ভান্ডার (র.) মাজার লেইন এলাকায় একটি বড় পুকুর ময়লা-আবর্জনা ফেলে ভরাট করা হচ্ছে। অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গতকাল শনিবার বেলা ১২টায় ছুটে যান এই এলাকায়।
প্রশাসক এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, পাঠানটুলী ওয়ার্ডের পুকুরে ময়লা ফেলে ভরাটের যে চিত্র প্রত্যক্ষ করলাম তা রীতিমত বেআইনি কর্মকা-। পুকুর-জলাশয় রক্ষায় পরিবেশ অধিদপ্তর ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) এর আইন রয়েছে। কেউ ইচ্ছে করলেই পুকুর ভরাট করতে পারে না। পাঠানটুলী ওয়ার্ড এমনিতেই গিঞ্জি এলাকা। অগ্নিকা-ের সময় ও বৃষ্টির পানি ধরে রাখতে পুকুর জলাশয়ের প্রয়োজন রয়েছে। এলাকায় অগ্নিকা-ের মতো দুর্ঘটনা ঘটলে অগ্নিনির্বাপণে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে সমস্যা হয়। তাই আগুন থেকে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি ও অতিবৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষায় এবং পানি ধারণ ক্ষমতার উৎস হলো পুকুর জলাশয়। নগরীর কিছু মানুষের চিন্তাশক্তি লোপ পেয়েছে। তারা যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলছে।
প্রশাসক বলেন, নগরে বসবাসকারীদের নাগরিক হয়ে উঠতে হয়, না হলে দুর্ভোগের শেষ হবে না। তিনি পুকুরে ফেলা সকল আবর্জনা দ্রুত পরিষ্কারে করপোরেশনের অতিরিক্ত পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে বলেন।
এ সময় তিনি ওই এলাকার রাস্তায় পরিচ্ছন্ন কর্মীরা নিয়মিত ঝাড়– দেয় না বলে অভিযোগ দিলে প্রশাসক তাৎক্ষণিক ওই এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিচ্ছন্ন সুপারভাইজারকে ভর্ৎসনা করেন। তাকে তৎক্ষণিক ওই এলাকা থেকে শাস্তিস্বরূপ বদলির নির্দেশ দেন। পরে তিনি পরিবেশ অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করে ‘বড় পুকুরটি’ রক্ষায় আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেন। পরিদর্শনকালে এলাকার রাস্তার উপর বেশ কিছু অবৈধ স্থাপনা দেখে তা অবিলম্বে সরিয়ে নিতে বলেন, না হয় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে জেল জরিমানা করা হবে বলে ভাসমান হকার-ব্যবসায়ীদের সতর্ক করে দেন।
খোরশেদ আলম সুজন আরো বলেন, নগরীর পাঠানটুলী, কদমতলী, বাইতুশ শরফ মাদ্রাসা ও দেওয়ানহাট এলাকায় ব্যবসাীয়গণ দোকানের সামনে ফুটপাতের উপর তাদের মালামাল টায়ার, টিউব, গাড়িার যন্ত্রাংশ রেখে অবৈধভাবে ফুটপাত দখল করে রেখেছেন। এতে জনসাধারণ ফুটপাত দিয়ে চলাচল করতে না পেরে রাস্তা দিয়ে চলাচল করে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে অনেকে প্রাণ হারাচ্ছেন। প্রশাসক ব্যবসায়ীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে ফুটপাত হতে তাদের মালামাল অপসারণ করে জনসাধারণের চলাচলের পথ সুগম করার নির্দেশ দেন। বিজ্ঞপ্তি