আগাম সবজিতে লাভবান চাষিরা

0
131

সরেজমিন: শঙ্খ নদীর চর

আবদুল কাইয়ুমস:
‘আল্লাহ দিয়েছে তাই ভালো দাম পেয়েছি, যারা সবজি তুলতে পেরেছে তারা দাম পেয়েছে’- আগাম ফসলের দাম পাওয়ায় হাসিমুখে এমনটি বলছিলেন চাষি আজম খান। আজম খানের মতো শঙ্খ নদীর তীরবর্তী চরে আগাম সবজি চাষ করে লাভবান হাজারো কৃষক।
চলতি বছরে শীতের আগাম সবজির সরবরাহ কম থাকায় কাঁচাবাজারে সবজির দাম ছিল আকাশচুম্বী। অনাবৃষ্টির কারণে উত্তরবঙ্গসহ দেশের বেশিরভাগ চরাঞ্চলে শীতের আগাম সবজি ফলাতে না পারায় দাম ছিল ক্রেতাদের নাগালের বাইরে।
বাজারে শীতের আগাম সবজি কম থাকলেও দক্ষিণ চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী রেলওয়ে সবজির বাজারের চিত্র ছিল ভিন্ন। শঙ্খ নদীর দুই তীরের লালুটিয়া চর, মুন্সির চর, চাগাচর, কুন্ডুকুলের চর, পুুরাতনগড়, নলুয়ার চর, বাজালিয়া চরে শীতের আগাম সবজি চাষ করে লাভবান হাজারো চাষি। শঙ্খ নদীর এসব চরে উৎপাদিত তরতাজা সবজি স্বাদে ও মানে ভালো হওয়ায় এখানকার সবজির চাহিদা এবং দাম অন্য এলাকার উৎপাদিত সবজির চেয়ে বেশি থাকে।
শঙ্খ নদীর তীরের লালুটিয়া চরের চাষি সামসুল আলম জানান, অনাবৃষ্টির কারণে সবজির চাষ কম হলেও আগাম চাষে ভালোই দাম পেয়েছি, আগাম সবজি বিক্রি করে আবার নতুন করে চাষ করছি। একই চরের চাষি মোহাম্মদ আশরাফ বলেন, উত্তরবঙ্গের সবজি বাজারে না থাকায় ভালো দাম পেয়েছি, আল্লাহর রহমতে খরচ বাদ দিয়ে অনেক লাভ হবে।
দোহাজারী রেলওয়ে সবজির বাজারে গিয়ে দেখা যায়, বেলা বাড়ার সাথে সাথে ক্রেতা-বিক্রেতার হাঁকডাকে জমে ওঠে সবজির বাজার। চাষিরা চর থেকে তরতাজা সবজি নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে বিক্রির জন্য। কেউ এনেছে বেগুন, কেউবা মুলা, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, ঢেরস, ফুলকপি, বাঁধাকপি, শিম, তিত করলা, বরবটি, চাল কুমড়া, কেউবা এনেছে তরতাজা লাল শাক, পালং শাক, মুলা শাক ও ধনিয়া পাতা।
শীতের মৌসুমী সবজির সরবরাহ বাড়তে থাকায় কমতে শুরু করেছে সব ধরনের সবজির দাম। সবজি বিক্রি করতে এসে দাম আশানুরুপ না পেলেও খুশি বিক্রি করতে আসা চাষিরা।
চাষি শেখ আহমদ জানান, গত কয়েক দিনের চেয়ে দাম কিছুটা কমলেও এখনো বেগুন, ফুলকপি ও বাঁধাকপির ভালো দাম রয়েছে। চাষি মুফিজুর রহমান জানায়, আগে দাম বেশি থাকলেও পরিমাণ কম ছিল এখন দাম একটু কম হলেও সবজির পরিমাণ বেশি।
দোহাজারী বাজারে সবজি কিনতে আসা কর্ণফুলী কমপ্লেক্সের বিক্রেতা মোস্তাক সওদাগর জানান, তরতাজা ও স্বাদে উন্নত হওয়ায় দোহাজারীর সবজির চাহিদা ও দাম বেশি। ক্রেতারা দোহাজারীর সবজি বেশি খুঁজে, তাই আমরা বেশি দাম হলেও এখানের সবজি নিয়ে যাচ্ছি। মোস্তাক সওদাগরের মতো রিয়াজউদ্দিন বাজার, বহদ্দারহাট, অক্সিজেন মোড় বাজারসহ বিভিন্ন বাজারের জন্য সবজি কিনতে এসেছেন অনেক বিক্রেতা।
সবজির দাম ও সরবরাহ নিয়ে দোহাজারী রেলওয়ে সবজির বাজারের ইজারাদার মোহাম্মদ ফেরদৌস বলেন, অনাবৃষ্টির কারণে মৌসুমী সবজির চাষ কম হওয়ায় বাজারে এখনো সরবরাহ কম কিন্তু আশার কথা হলো, বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে বাজারে মৌসুমী সবজি আসতে থাকায় দাম কমতে শুরু করেছে। তিনি আরো বলেন, যেসব চাষি আগাম সবজি ফলাতে পেরেছে তারা ভালো দাম পেয়েছে, তখন বাজারে সরবরাহ কম থাকার পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের সবজি না থাকায় চাষিরা লাভবান হয়েছে।