আইলিগে মোহামেডানের হয়ে খেলবেন জামাল ভুঁইয়া

0
154

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
জল্পনাটা চলছিল বেশ কয়েকদিন যাবৎ। কিন্তু কথা পাকছিল না পুরোপুরি। অবশেষে জল্পনা সত্যি করে বাংলাদেশ ফুটবল দলের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়ার মোহামেডান স্পোর্টিংয়ে যোগদানের খবরে কেবল সিলমোহর পড়ার অপেক্ষা। পড়শি দেশের অধিনায়কের সঙ্গে চুক্তি চূড়ান্ত হওয়ার বিষয়টি এক ক্রীড়া সংবাদমাধ্যমকে স্পষ্ট জানিয়েছেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সচিব ওয়াসিম আক্রাম। ইতিমধ্যেই চুক্তি সংক্রান্ত সমস্ত কাগজপত্রের কাজও শুরু করে দিয়েছেন মোহামেডান স্পোর্টিং কর্তারা।
উল্লেখ্য, বিগত কয়েকদিন ধরেই বাংলাদেশ অধিনায়কের সাদা-কালো জার্সি গায়ে চাপানোর বিষয়টি নিয়ে বাংলার ফুটবল মহলে জোর চর্চা চলছিল। মোহামেডান স্পোর্টিং’য়ের তরফ থেকে ভালো অঙ্কের প্রস্তাব পেয়ে প্রাথমিকভাবে জামাল ভুঁইয়া রাজি হয়ে গেলেও একমাত্র বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারত তার পুরনো ক্লাব সাইফ স্পোর্টিং। কারণ পুরনো ক্লাব নো-অবজেকশন সার্টিফিকেট না দিলে কোনওভাবেই মোহামেডান স্পোর্টিংয়ের জার্সি গায়ে চাপাতে পারতেন না জামাল ভুঁইয়া। এমনটাই ক্রীড়া সংবাদমাধ্যমটিকে জানিয়েছেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সচিব।
সেই নো-অবজেকশন সার্টিফিকেট বা এনওসি সইফ স্পোর্টিং’য়ের থেকে পেয়ে গিয়েছেন জামাল। অর্থাৎ, মোহামেডান স্পোর্টিং’য়ের হয়ে আগামী মরশুমে মাঠে নামতে আর কোনও বাধা রইল না জামালের। বুধবার এমনটাই জানানো হয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের পক্ষ থেকে। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের ক্লাবটির হয়ে আগামী বছর লিগের দ্বিতীয় পর্বে মাঠে নামবেন তিনি। উল্লেখ্য, আগামী বছর জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে ঢাকে কাঠি পড়বে আইলিগের। তার আগে সইসাবুদ পর্ব মিটিয়ে ডিসেম্বরের শুরুতেই পড়শি দেশের মিডফিল্ডার এদেশে চলে আসবেন বলে মনে করা হচ্ছে। জামালের এদেশে খেলতে আসার জন্য সাইফ স্পোর্টিং’য়ের ম্যানেজমেন্টও অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।
কাতার বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বে ভারতের বিরুদ্ধে খেলতে গতবছর কলকাতায় এসেছিলেন জামাল। শুধু খেলতে আসাই নয়, জামালের সেটপিস থেকে গোল করে যুবভারতীতে ওই ম্যাচে বাংলাদেশকে এগিয়ে দিয়েছিলেন সাদঊদ্দিন। যদিও আদিল খান পরে সেই গোল শোধ করে ম্যাচ ড্র রাখতে সমর্থ হয়েছিলেন। তবে বাংলার ফুটবলপ্রেমীদের সঙ্গে জামালের পরিচয় ওই প্রথম। এবার সেই জামালের মোহামেডান জার্সি গায়ে চাপানো সময়ের অপেক্ষা। আইলিগ জয়ের জন্য শক্তিশালী দল গড়তে জামালের অন্তর্ভুক্তি সাদা-কালো শিবিরে যথেষ্ট ইতিবাচক বলে মনে করা হচ্ছে। তবে ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতেই হবে। খবর : কলকাতাটোয়েন্টিফোর’র।