৩১ মে থেকে সীমিত আকারে চলবে ট্রেন

0
203
কোন রুটে কোন ট্রেন চলাচল করবে, আসন বিন্যাস কেমন হবে সেই নির্দেশনা আসবে শনিবার- জিএম, পূর্বাঞ্চলীয় রেলওয়ে

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সীমিত আকারে ট্রেন পরিচালনায় প্রস্তুত হচ্ছে রেলওয়ে। তবে কোন রুটে কতোটি ট্রেন চলবে, আসন বিন্যাস কেমন হবে কিংবা তা নির্ধারণ হবে শনিবার। সেদিন ঢাকায় রেলমন্ত্রীর উপস্থিতিতে সভা রয়েছে, সেই সভায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।

সীমিত আকারে ৩১ মে থেকে ট্রেন চালানোর কথা স্বীকার করে পূর্বাঞ্চলীয় রেলওয়ে মহাব্যবস্থাপক (জিএম) নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন,‘সরকারের সিদ্ধান্তের আলোকে ৩১মে থেকে সীমিত আকারে ট্রেন পরিচালনা করা হবে। তবে সব ট্রেন চলবে না।  কোন ট্রেন চলবে এবং আসন বিন্যাস কেমন হবে তা শনিবারের সভায় সিদ্ধান্ত হবে।’

সামাজিক দূরত্ব মেনে ট্রেন পরিচালনার জন্য প্রস্ততি রয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে আমরা আমাদের সব ধরনের প্রস্ততি সম্পন্ন করেছি। আমাদের যেহেতু পার্শেল ট্রেন প্রতিদিন চলাচল করছে সেহিসেবে আমরা এক ধরনের প্রস্তুত।

রেলওয়ে স্টেশনে টিকেট কাটতে দীর্ঘ লাইন কিংবা ট্রেনে উঠতে ধাক্কা ধাক্কি হয়। এগুলো কিভাবে সামাল দেয়া হবে জানতে চাইলে পূর্বাঞ্চলীয় রেলওয়ের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা আনসার আলী বলেন, আমরা ইতিমধ্যে স্টেশনের টিকেট কাউন্টারের সামনে গোল চিহ্নিত করে দিয়েছি। এতে দূরত্ব মেনে যাত্রীরা টিকেট সংগ্রহের জন্য লাইনে দাঁড়াবে। একইসাথে ট্রেনে উঠার সময় যাত্রীদের হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেয়ার জন্য আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা থাকবে। অর্থাৎ সামাজিক দূরত্ব মেনে আমরা আমাদের ট্রেন পরিচালনা করতে পারবো।

ট্রেনের ভেতরে আসন বিন্যাস কেমন হবে? দুই সিটে তো দুই জন বসতে পারবে না। এবিষয়ে তিনি বলেন, আসন বিন্যাস কেমন হবে তা নিয়ে এখনো নির্দেশনা আসেনি। অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব মেনে কিভাবে আসন বিন্যাস মেনে চলা যায় সেবিষয়ে নির্দেশনা আসবে, আর আমরা মাঠ পর্যায়ে তা নিশ্চিত করবো।

তবে অপর এক সূত্রে জানা যায়, ট্রেনের আসনের ৫০ শতাংশ টিকেট বিক্রির বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেই হিসেবে একটি কোচে ৬০টি আসন থাকলে ৩০টি আসনের টিকেট বিক্রি হওয়ার কথা।

৩১ মে থেকে সীমিত আকারে গণ পরিবহন চলার ঘোষনার পর থেকে রেলওয়েসহ সব ধরনের গণ পরিবহন কিভাবে চালু করা যায় সেবিষয়ে ভাবা হচ্ছে। গত ২৬ মার্চ থেকে দেশে গণ পরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।