সকল সম্প্রদায়ের প্রচেষ্টায় উন্নত দেশ গড়া সম্ভব

0
73

খ্রিস্টান নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

‘বাংলাদেশের মুসলমান-হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সকল ধর্ম পালনে সরকার সমসুযোগ দিয়ে থাকেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীন করে সংবিধান উপহার দিয়েছেন। তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশ পরিচালনা করে যাচ্ছেন। দেশবাসী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখছে। সকল সম্প্রদায়ের মানুষের অংশগ্রহণে ও ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ গড়া সম্ভব।’
গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে বিভাগের খ্রিস্টান ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের সাথে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান এমপি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ১৯৮৩ সালে খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট বিষয়ক অধ্যাদেশ জারির ২৬ বৎসর পর ২০০৯ সালের ৫ নভেম্বর খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা হয়। সরকার ২০১১ খ্রিস্টাব্দের জুলাই মাসে ট্রাস্টের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৫ কোটি টাকার এনডাওমেন্ট তহবিল ছাড়পূর্বক ট্রাস্টের নামে ১টি স্থায়ী আমানত করেছে। ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠার পর বিগত ১০ বছরে ট্রাস্ট তহবিলের মুনাফার টাকা থেকে দেশের ৪১৭টি চার্চকে ২ কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, পালক-পুরোহিতদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ৬টি এবং ছাত্র-যুবকদের নীতি নৈতিকতা বিষয়ক ১৪টি প্রশিক্ষণ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এতে ৪৪৬ জন পালক-পুরোহিত এবং ৯৬৬ জন ছাত্র-যুবক অংশগ্রহণ করেছে। এছাড়াও বিগত ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালের শুভ বড়দিন উদযাপন উপলক্ষে সমগ্র বাংলাদেশে গির্জা/ চার্চ/ উপাসনালয়গুলোর জন্য খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের অনুকূলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ২ কোটি ৫০ লাখ টাকার বিশেষ অনুদান প্রদান করা হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, যে, ২০০৮ সাল পর্যন্ত খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা হয়নি এবং খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের কল্যাণে কোন উন্নয়ন কার্যক্রম ইতোপূর্বের সরকারগুলো গ্রহণ করেনি।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি ও রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল বলেন, মুসলমান ধর্মের সাথে অন্যকোন ধর্মের মত পার্থক্য নেই। বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক ধর্মের দেশ। সংখ্যালঘু বলতে কিছুই নেই। সবার অংশগ্রহণেই সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণ সম্ভব। এসময় তিনি খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের কল্যাণ ট্রাস্টের জন্য ৫০ কোটি টাকার ফান্ড করে দেওয়ার প্রস্তাব করেন।
খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উইলিয়াম প্রলয় সমদ্দারের সভাপতিত্বে ও মানিক উইলভার ডি’কস্তার সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নুরুল ইসলাম পিএইচডি, অতিরিক্ত সচিব মো. হামিদ জমাদ্দার, ইসলামী ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ফারুক আহম্মেদ (যুগ্ম সচিব), জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম, হাটহাজারী উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম রাশেদুল আলম ও আওয়ামী যুব লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক বদিউল আলম।
আরও বক্তব্য রাখেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উত্তম শর্মা ও বৌদ্ধ ধমীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া। চট্টগ্রামের বিভিন্ন খ্রিস্টিয় উপাসনালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
এরপর সকাল সাড়ে ১০টায় প্রতিমন্ত্রী স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে নগরীর ষোলশহরের চশমা হিলস্থ নগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কবর জেয়ারত শেষে তার বাসভবনে সহধর্মিণী হাসিনা মহিউদ্দিনের সাথে কুশলাদি বিনিময় করেন। বিজ্ঞপ্তি