বিপর্যয় কাটিয়ে দিন শেষে স্বস্তি

0
90
Bangladesh's Shakib Al Hasan (R) with teammate Mushfiqur Rahim run between the wickets during the first day of the first cricket Test match between Bangladesh and West Indies at the Zohur Ahmed Chowdhury Stadium in Chittagong on February 3, 2021. (Photo by Munir Uz zaman / AFP) (Photo by MUNIR UZ ZAMAN/AFP via Getty Images)

৫ উইকেটে ২৪২ রান সংগ্রহ বাংলাদেশের

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক :
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার টেস্ট অধিনায়ক মমিনুল হক। দ্বিতীয় সেশনে একটু চাপে পড়লেও ঘুরে দাঁড়িয়ে দিন শেষ করলো টাইগাররা। প্রথম শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২৪২ রান।
গতকাল চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে ডানহাতি সাইফকে টপকে তামিম ইকবালের সঙ্গী হয়েছেন বাঁ-হাতি ওপেনার সাদমান। শুরুটাই ভালো করেছিল টাইগাররা। তবে তামিম ইকবালের ভুলে ২৩ রানে ভাঙলো ওপেনিং জুটি। কেমার রোচের বলে ব্যক্তিগত ৯ রানে বোল্ড আউট হন তামিম। সাদমানকে সঙ্গ দিয়ে মাঠে নামেন নাজমুল হোসেন শান্ত।
দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার কাজটা দারুণভাবেই করছিলেন সাদমান ইসলাম ও নাজমুল হোসেন শান্ত।
দুই প্রান্তে সমান সাবলীলভাবে খেলতে থাকেন সাদমান ও শান্ত। অফস্পিনার রাহকিম কর্নওয়াল আক্রমণে এসে কয়েকটি ভালো ডেলিভারি করেন, কিন্তু সেগুলোতে আউট হওয়ার মতো অবস্থার সৃষ্টি হয়নি। বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়ে ১৮তম ওভারে দলীয় পঞ্চাশ পূরণ করে বাংলাদেশ। ক্যারিবীয় বোলাররা যখন উইকেট নিতে ব্যর্থ, তখন নিজেরাই উইকেট বিলিয়ে দেয়ার পথে হাঁটেন সাদমান-শান্ত।
২৪তম ওভারের প্রথম বলে ফাইন লেগে ঠেলে দ্রুততার সঙ্গে এক রান নেন সাদমান। তিনি দ্বিতীয় রানের জন্য দৌড় শুরু করেন কিন্তু ইচ্ছা ছিল না শান্তর, তিনি দাঁড়িয়ে থাকেন ক্রিজেই। কিন্তু সাদমান যখন কাছাকাছি পৌঁছে যান, তখন নিজের উইকেটটি স্যাক্রিফাইস করেন শান্ত। ফলে সম্ভাবনাময় জুটিটি ভাঙে মাত্র ৪৩ রানে। শান্তর ব্যাট থেকে আসে ৩ চারের মারে ৫৮ বলে ২৫ রান।
সেশনের পাঁচ ওভার বাকি থাকতে উইকেটে আসেন অধিনায়ক মুমিনুল। তার বিপক্ষে শর্ট বলের পশরা সাজান গ্যাব্রিয়েল। এর মধ্যে ২৮তম ওভারের তৃতীয় বলে প্রায় আউট হয়েই গেছিলেন মুমিনুল। অল্পের জন্য শর্ট লেগ ফিল্ডারের সামনে পড়ে বল, বেঁচে যান টাইগার অধিনায়ক। পরের ওভারটি নির্বিঘ্নে কাটিয়ে সেশন শেষ করে বাংলাদেশ। সাদমান ৩৩ ও মমিনুল ২ রান নিয়ে দ্বিতীয় সেশনে খেলতে নামেন।
৬৬ রানে দুই উইকেট যাওয়ার পর সাদমানকে নিয়ে দারুণ একটি জুটি গড়ে তুলেছিলেন মুমিনুল হক। কিন্তু তাদের এই ৫৩ রানের জুটি বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি জোমেল ওয়ারিকানের স্পিন ঘূর্ণির সামনে। ৯৭ বলে ২৬ রান করে ওয়ারিকানের বলে ক্যাম্পবেলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মমিনুল হক।
এবার দলকে আশার আলো দেখানো সাদমান (৫৯) ফেরেন এলবিতে। জোমেল ওয়ারিকানের বলে ঘরে ফেরেন সাদমান যখন দলীয় রান ১৩৪।
৪ উইকেট হারানো বাংলাদেশ তাকিয়ে ছিল দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের দিকে। দু’জন আস্থার প্রতিদানও দিচ্ছিলেন। গড়েন ৫৯ রানের জুটি। তবে দিনের শেষ সেশনে এসে বিদায় নেন মুশি। ওয়ারিকানের বল ব্যাটের কানায় লেগে চলে যায় ¯ি¬পে দাঁড়ানো রাহকিম কর্নওয়ালের হাতে। ৩৮ রান করে বিদায় নেন মুশফিক। দলের রান তখন ১৯৩।
এরপর ব্যাটে আসে লিটন দাস। সাকিব-লিটনে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। এরপর আর আর উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ। ২৪২ রানে প্রথম দিন শেষ করলো টাইগাররা। সাকিব ৩৯* ও লিটন ৩৪*।
ম্যাচের আগেরদিন পর্যন্ত দলের ওপেনার নিয়ে স্পষ্ট তথ্য দিতে পারেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক মমিনুল হক। তিনি জানিয়েছিলেন, ম্যাচের দিন (বুধবার) সকালে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে সাইফ হাসান নাকি সাদমান ইসলামকে নেয়া হবে।
নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফেরার পর প্রথমবারের মতো টেস্ট খেলতে নামছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এবং সুযোগ পেয়েছেন অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ।
আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের এটি চতুর্থ ম্যাচ। এর আগের তিনটি ম্যাচেই বাংলাদেশ হেরেছে। বাংলাদেশের সামনে এবার জয় তুলে নেয়ার বড় সুযোগ। কারণ এবারের সফরে পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে আসেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। খবর : ডেইলিবাংলাদেশ’র।