ফাল্গুনের আগুন পারকিতে

0
76

তিনদিনের ছুটি

নিজস্ব প্রতিনিধি, আনোয়ারা :
সাপ্তাহিক ছুটি শুক্র ও শনিবার। সে সঙ্গে যোগ হয়েছে ২১ ফেব্রুয়ারি রোববার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ছুটি। সব মিলিয়ে ঈদের মত টানা তিনদিনের ছুটিতে ফাল্গুনের আগুন লেগেছে পারকি সমুদ্র সৈকতে। রোববার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত যেন পর্যটকের ঢল নেমেছে সৈকতের চরে।
জানা গেছে, প্রকৃতির লীলাভূমি শাহ্ মোহছেন আউলিয়ার স্মৃতি বিজড়িত বার আউলিয়ার পুণ্যভূমি আনোয়ারাকে বিধাতা যেন সৃষ্টির সবটুকু সৌন্দর্য উজাড় করে নিজের মাধুরী দিয়ে সাজিয়েছেন। সৃষ্টির আশ্চর্য সৌন্দর্যের সব কিছুই এখানে রয়েছে। সমুদ্র, পাহাড়, কেইপিজেডের প্রাকৃতিক লোকের নয়ন জুড়ানো নীল জলরাশি, সবুজে ছেয়ে যাওয়া ভূমি, স্মৃতি বিজড়িত তীর্থস্থান ও শাহ্ মোহছেন আউলিয়া ডিগ্রি কলেজ ঘেষে ইকোপার্ক কি নেই এখানে? তাইতো আনোয়ারার তিলোত্তমা রূপ দেখতে ছুটে আসেন প্রকৃতি প্রেমীরা। আনোয়ারাতে দর্শনীয় স্থান অনেক হলেও ভ্রমণ পিপাসুদের কাছে সমুদ্রের আকর্ষণ সবসময় একটু বেশি তা তো বলার অপেক্ষা রাখে না। প্রতিদিন দূর দূরান্ত থেকে সমুদ্রের বালুচরের প্রেমীরা ছুটে আসছেন এখানে। পারকি বিস্তীর্ণ বালুচরে সমুদ্রের বিশাল বিশাল ঢেউগুলো দর্শনার্থীদের দুহাত বাড়িয়ে কাছে ডাকে বার বার। করোনা সংক্রমণের বিরূপ প্রভাব কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে সৈকতের রেস্টুরেন্টসহ ক্ষুদ্রে ব্যবসায়ীরা। পর্যটকরা আসতে শুরু করায় বদলে গেছে সৈকতের পরিস্থিতি। পর্যটক থাকায় ব্যবসায়ীদের চোখে-মুখে হাসির ঝিলিক। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের চিন্তার ভাঁজও ভুলিয়ে দিয়েছে করোনার টিকা। প্রতি বছরের মতো এ বছরও পর্যটকদের ভিড়ে মুখরিত সৈকতের বালুচর।
ঘুরতে আসা পর্যটক ব্যাংক কর্মকর্তা দিদার হোসেন জানান, ঠিক কক্সবাজারের মত অতি দীর্ঘ না হলেও এখানেও রয়েছে সারি সারি ঝাউ গাছ আর বালুচর। সন্ধ্যায় সূর্যাস্তের আবির রঙের সমুদ্র এখান থেকেও দেখা যায়। তাই এখানে এসে তার ভালোই লাগছে।
কর্ণফুলী থেকে ঘুরতে আসা কলেজ শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান জাগিয়া বলেন, প্রায় সময় বন্ধুরা তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে সৈকতের সৌন্দর্য দেখতে আসেন এখানে। কলেজ বন্ধ আর আব্বু তো অফিসের লম্বা ছুটি সব মিলিয়ে একটা মজার দিন কাটলো আজকের। সৈকতে তেমন হাঁটা যাচ্ছে না বালু সরে গিয়ে তো পলি মাটি জমে আছে। তারপরও বেশ ভালো লাগছে।
ব্যবসায়ীরা জানান, প্রতি শুক্র ও শনিবার অনেক পর্যটক আসে এখানে। আর এরমধ্যে তিনদিন টানা ছুটিতে বেড়ে গেছে পর্যটক। করোনার সময়ে ব্যবসা বন্ধ ছিলো। এখন পর্যটকও আসছে, বেচাকেনাও বেড়েছে। করোনা বিপর্যয় কাটিয়ে ফের ঘুরে দাঁড়াচ্ছেন বলে জানান ব্যবসায়ীরা।
স্থানীয় চেয়ারম্যান এমএ কাইয়ূম শাহ্ বলেন, পারকি সমুদ্র সৈকত দেশের পর্যটক প্রেমীদের নিকট একটি জনপ্রিয় স্থান। প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্য হিসেবে খ্যাত এই সমুদ্র সৈকত যেন এক দৃষ্টি নন্দন প্রকৃতি। সারিবদ্ধ ঝাউ গাছের সবুজ প্রকৃতিতে গড়ে ওঠা পর্যটকদের কাছে খুবই ভ্রমণ জনপ্রিয় জায়গা। সাগর ও প্রকৃতি প্রেমী পর্যটক এই সমুদ্র সৈকতের তিলোত্তমা রূপ দেখতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সৈকতে ছুটে আসেন হাজারো পর্যটক। উপজেলা প্রশাসন ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বিভিন্ন নিরাপত্তার ব্যবস্থা রয়েছে যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।
কর্ণফুলী থানার অফিসার ইনচার্জ দুলাল মাহমুদ বলেন, সাপ্তাহিক ছুটি এরমধ্যে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ছুটি। সব মিলিয়ে পর্যটকরা আসতে শুরু করেছে সৈকতে। পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য সৈকতে রয়েছে পুলিশ সদস্যরা। যাতে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।